চীনকে শিক্ষা দিতে সমুদ্রের ৩০০ মিটার গভীরে পাতা হতে পারে মাইন?

নিউজ ডেস্কঃ ভারতবর্ষের দেশীয় জিনিসের চাহিদা আসতে আসতে যে বাড়ছে তা বলাই বাহুল্য। পাশাপাশি দেশীয় সংস্থা গুলি যুদ্ধাস্ত্র গুলি আরও ভয়ংকর এবং বিধ্বংসী করে তয়াল্র চেষ্টা করা হচ্ছে। জল থেকে আকাশ সব স্থানে নতুন টেকনোলোজি আস্নার চেষ্টা করা হচ্ছে।

DRDO তৈরী সমুদ্রে পাতার processor based ground mine PBGM তৈরী করেছে নেভাল সিস্টেম এন্ড মেটেরিয়ালস NS& M এবং নেভাল সায়েন্স এন্ড টেকনলোজিক্যাল লাবরোটারি NSTL মিলে।

এটা একটি সমুদ্রের তল দেশে পাতার মাইন। যা সাবমেরিন বা সারফেস শিপ থেকে মোতায়েন করা যায়। বৈশিষ্ট সারফেস শিপ বা সাবমেরিন থেকে সমুদ্র পৃষ্ঠের 300 মিটার গভীরে পাতা যায়।

প্রি সেট করা ডেপথ সি মাইন সারফেস শিপ ধংসের জন্য।

সেন্সর ফেকসুয়াল আকুয়েস্টিক হাইড্রো ফোন ফ্লোক্স গেট আর মাগণমিটার সমেত। অর্থাৎ জলের চাপ ও কম্পন অনুভব করার প্রণালী। কম্পোজিট মেটেরিয়াল ফাইবার গ্লাস দিয়ে তৈরী যাতে মাইন হান্টিং সোনার কে ফাঁকি দেয়া যায়। বর্তমানে 150 টি ইউনিট তৈরি হয়েছে 2005 সাল থেকে ENC ও WNC দুই নৌ বাহিনীর শাখার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *