“আর্মি অফ ইসলাম” তৈরি করতে চায় তুরস্ক

নিউজ ডেস্কঃ ইসরায়েলের সাথে যে মুসলিম দেশ গুলির সম্পর্ক আদায় কাঁচকলায় তা সকলেরই জানা। বিশেষ করে মধ্য প্রাচ্যের। শুধু তাই নিয় পাকিস্তানের সাথেও তাদের সম্পর্ক একইরকম। পাকিস্তান তাদের দেশের নাগরিকদের ইসরায়েলে যাওয়ার জন্য কোনোরকম পাসপোর্ট দেয়না। আর এই দেশটির বিরুদ্ধেই ৫৭ টি দেশ নিয়ে আর্মি অফ ইসলাম গড়তে চায় তুরস্ক।

বিশ্বের ৫৭টি মুসলিম দেশের সেনাবাহিনীর সদস্যদের নিয়ে ‘আর্মি অব ইসলাম’ নামে বিশাল সামরিক বাহিনী গঠন করতে চায় তুরস্ক। দেশটির এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হলে ইসরায়েল দখল এমনকি দেশটিতে হামলা চালাতেও সক্ষমতা অর্জন করতে পারবে এই ‘আর্মি অব ইসলাম’ নামক সামরিক বাহিনী বলে মনে করে তুরস্ক। তুরস্কের স্থানীয় ভাষার দৈনিক ইয়েনি সাফাক এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

সূত্রের খবর অনুযায়ী মুসলিম বিশ্বের দেশগুলোর জোট ইসলামি সম্মেলন সংস্থার (ওআইসি) ৫৭ দেশের জনসংখ্যা প্রায় ১৬৭ কোটি ৪৫ লাখ ২৬ হাজার ৯৩১ জন।এসব দেশের সক্রিয় সৈন্য রয়েছে প্রায় ৫২ লাখ। মুসলিম দেশগুলোর সামরিক বাজেট প্রায় ১৭৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের। ওআইসির সদস্য দেশগুলো যদি এই সামরিক বাহিনী গঠনে সম্মত হয় তাহলে তা ইসরায়েলি বাহিনীর চেয়ে বেশি শক্তিশালী হবে। একই সঙ্গে ইসরায়েলে হামলা এমনকি দেশটি দখলেও নিতে পারবে এ বাহিনী।

ইসরায়েলের মোট জনসংখ্যা প্রায় ৮০ লাখ ৪৯ হাজার ৩১৪ জন। মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটির সক্রিয় সেনা রয়েছে ১ লাখ ৬০ হাজার; বার্ষিক সামরিক বাজেট প্রায় ১৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। তবে ৫৭ টি দেশ একসাথে জোট হওয়া অনেকটা অসম্ভব কারন মধ্য প্রাচ্যের একাধিক দেশে বর্তমানে গৃহ যুদ্ধ চলছে, অন্যদিকে আরবের সাথে কাতারের মতো একাধিক দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক খুবই খারাপ। এবং রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক শেষের পথে, সেক্ষেত্রে জোট হওয়া অনেকটা চাপ। সেক্ষেত্রে ইসরায়েল অনেক বেশি শক্তিশালি দেশ। তারা একসাথে ৭ টি দেশের সাথে যুদ্ধ করেছে। এবং যুদ্ধ বেশ ক্ষতিও হয়েছে মধ্য প্রাচ্যের দেশ গুলির।  শুধু তাই নিয় মাঝে মধ্যেই মধ্য প্রাচের একাধিক দেশের উপর হামলা চালায় ইসরায়েল, এবং ইসরায়েল এতোটাই শক্তিশালি যে তাদের সাথে পেরে ওঠার ক্ষমতা তাদের নেই। কিছু দিন আগেই ইরানের পারমাণবিক কেন্দ্রে হামলা চালিয়েছিল তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *