ভারতবর্ষ থেকেও জাপানে হামলা চালানো হত এই যুদ্ধবিমানের সাহায্যে

নিউজ ডেস্কঃ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় তৈরি হওয়া বেশ কিছু বিমান ছিল ভারতের বিমান বহরে। বিশেষ করে ইংল্যান্ডের উপনিবেশ হওয়ার ১৯৪০ এর দিকে ভারতের বিমান বহরে বেশিরভাগ জিনিস ক্রয় করা হত ইংল্যান্ড থেকে। বিশেষ করে ভারতে বিমান বহরে বেশিরভাগ বিমান ছিল ব্রিটেনের তৈরি বিমান।

সুপারমেরিন স্পিট ফায়ার। ব্রিটেনের সেইসময়কার অন্যতম সেরা একটি যুদ্ধবিমান। ১৯৩৬ সালে প্রথমবার আকাশে উড়তে দেখাগেলেও ১৯৩৮ সালে সার্ভিসে আসে এই যুদ্ধবিমানটি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় এক বিরাট ভূমিকা পালন করে যুদ্ধবিমানটি।

ইংল্যান্ড, ক্যানাডা আমেরিকার মতো প্রায় ৪০ টি দেশের হাতে ছিল এই যুদ্ধবিমানটি। ভারতবর্ষের হাতেই ছিল প্রায় ১৭০ টি মতো এই বিমান। যদিও বিভিন্ন ভার্সনের বিমান ছিল। বেশ কিছু বিমান ছিল যেই বিমান গুলিকে ট্রেনিং এয়ারক্রাফট হিসাবে ব্যবহার করা হত।

তবে এই যুদ্ধবিমান গুলি সেইসময় বেশি হারের মুখ দেখেছিল। আর সেটাই চিন্তার কারন হয় সেইসময় কার। তবে সেইসময় দাঁড়িয়ে সর্বচ্চ গতিসম্পন্ন বিমান গুলির মধ্যে অন্যতম বিমান ছিল এটি।

১৯৫০ সাল পর্যন্ত বিভিন্নভাবে ব্যবহার করা হয়েছে যুদ্ধবিমানটিকে। জাপান, ফিলিপিন্স এর মতো দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বিরুদ্ধেও এই বিমানকে ব্যবহার করা হয়েছিল।  জার্মানের নাতসিবাহিনির বিরুদ্ধেও এই যুদ্ধবিমান ব্যবহার করা হয়ছে।

৬০০ কিমি/ঘণ্টার গতিবেগে উড়তে সক্ষম যুদ্ধবিমানটি। প্রায় ৮০০ কেজি অস্ত্র বহন করতে সক্ষম যুদ্ধবিমানটি। ফুয়েল ট্যাঙ্ক নিয়ে যুদ্ধবিমানটি প্রায় ১৮০০ কিমি পর্যন্ত উড়তে সক্ষম ছিল। ৩৬০০০ ফুট থেকে এটি আক্রমণ করতে সক্ষম হত।

যুদ্ধবিমান গুলিকে ১৯৪১ থেকে ১৯৪৫ এর দিকে ফিলিপাইন্স, থাইল্যান্ড, বার্মা এবং জাপানের বিরুদ্ধেও ব্যবহার করা হয়েছে। অর্থাৎ একবার ভেবে দেখুন যে যেখানে ভারতের প্রচুর সেনা রয়েছে জাপানে আর সেই জাপানের বিরুদ্ধে ভারতের অর্থে যুদ্ধবিমান ক্রয় করে জাপানে ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধেও ব্যবহার করেছে, এমনটাই মত আন্তর্জাতিক মহলের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *