অপেরা মিস ইন্ডিয়া ২০২০, সিজন ৩ এর বিজয়ী ঘোষিত হলেন শিঞ্জিনী দত্ত

ওপেরা মিস ইন্ডিয়া গ্লোবাল এ বিজয়ী ঘোষিত হলেন শিঞ্জিনী দত্ত। ওপেরা মিস ইন্ডিয়া গ্লোবাল 2020 ই, 16 জন ফাইনালিস্ট দের মধ্যে তিনি ছিলেন অন্যতম দাবিদার। শিঞ্জিনী অনেকগুলি সাবটাইটেল এর অধিকারী হন, সেই সাবটাইটেল গুলি হল মিস ফ্যাশন আইকন এবং মিস বিউটি উইথ পারপাস্। এই বিউটি প্রেজেন্ট তিন দিন ধরে অতিবাহিত হয়।সেমি ফাইনাল রাউন্ড এর ট্যালেন্ট রাউন্ড থেকে এই বিউটি প্রেজেন্ট অনুষ্ঠান শুরু হয়। শিঞ্জিনি, ট্যালেন্ট রাউন্ডে বিচারকমণ্ডলীর মন জিতে নেয় সিন্থেসাইজার বাজিয়ে। এর পরবর্তী দিনে ফিটনেস , রেম্প ওয়াক, পারসোনালিটি ডেভেলপমেন্ট সেশন এর উপর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। এর পরবর্তী অন্তিম এবং সর্বশ্রেষ্ঠ দিনে এই বিউটি পেজেন্ট এর অনুষ্ঠানটি তিনটি পর্যায়ে বিভক্ত হয় তিনটি পর্যায় হলো,পরিচয় রাউন্ড ,প্রশ্ন-উত্তর রাউন্ড এবং রেম্প ওয়াক হয় এথনিক, ওয়েস্টার্ন , এবং প্রপ রাউন্ড এ। ফাইনালিস্টদের বিভিন্ন রকম টাস্ক করতে দেওয়া হয়, তার মধ্যেই ছিল কোভিড ১৯’ নিয়ে সচেতনতা ছড়িয়ে দেওয়া। এই সচেতনতা সৃষ্টি করার জন্য শিঞ্জিনী ক্যান্সার রোগী ও দরিদ্র শিশুদের কাছে যায় এবং তাদেরকে সচেতন করে। সে গান্ধী সেবা সংঘে যায় এবং হাতে তৈরি মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিতরণ করে। সে বিজয়ী বিবেচিত হয় বিভিন্ন প্রকার কাজকর্ম, রেম্প ওয়াক, ব্যক্তিত্ব এবং সাধারণ জ্ঞানের ধারণা উপর নির্ভর করে।শিঞ্জিনী দত্ত একজন প্রফেশনাল মেকআপ আর্টিস্ট সে তার পোস্ট গ্রাজুয়েশন এবং মাস্টার্স কমপ্লিট করেছেন সোশ্যাল ওয়ার্ক এর উপর সেন্ট জেভিয়ার্স ইউনিভার্সিটি কলকাতা থেকে।বর্তমানে সে বিভিন্ন রাজ্য এবং জেলার মেয়েদের মেকআপ এর উপর ট্রেনিং দিচ্ছেন এবং কলকাতার বুকে তার মেকআপ স্টুডিও নিয়ে দাপিয়ে কাজ কর্ম করে যাচ্ছেন।


শিঞ্জিনী বললেন “আমার লক্ষ্য হলো মহিলাদের আত্ম সক্ষম করা এবং শিশুদের শিক্ষা অন্তর্ভুক্ত করা । আমি বিশ্বাস করি এই মঞ্চ আমাকে সেই সুযোগ দেবে যথার্থ প্রভাবক হতে।”


এই কম্পিটিশন সংগঠিত করেছিল ওপেরা মিডিয়া এবং রিগ্রেশন প্রাইভেট লিমিটেড। তারা ভারতবর্ষের ছাড়াও আরো বিভিন্ন দেশ থেকে অনেক পার্টিসিপেন্ট দের অংশগ্রহণ করতে সুযোগ দেয়। এই প্রোগ্রামটি কে সাপোর্ট করে হিন্দি গৌরব অফ সিডনি। যারা নিয়মিত ভাবে বিউটি পাজেন্ট প্রত্যেক বছর ভারত বর্ষ এবং অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন শহরে সংগঠিত করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *