ম্যাডোনা থেকে শুরু করে হিউজ্যাক ম্যান। হিন্দু ধর্মের অনুসারি যেসব হলিউড তারকারা

বিশ্বের প্রাচীনতম এবং তৃতীয় বৃহত্তম ধর্ম হল হিন্দু ধর্ম । ভারত যেমন তার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য বিখ্যাত তেমনি দেশটি হিন্দু ধর্মের প্রবর্তক হিসেবেও সারা পৃথিবীর মানুষের কাছে পরিচিত। হিন্দু সনাতন ধর্মে জীবনের সকল সমস্যার সমাধান রয়েছে । এমন কিছু প্রশ্নের উত্তর এই ধর্মে রয়েছে যা সমাধান করতে গিয়ে আধুনিক বিজ্ঞানও হার মেনেছে। তাই হিন্দু সনাতন ধর্ম শুধু ধর্মের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই মানুষের জীবনযাপনে  পরিণত হয়েছে। হিন্দু ধর্মের শিক্ষা সর্বদা বিশ্বব্যাপী মানুষকে আকৃষ্ট করেছে।  এমনকি অ্যাপলের স্টিভ জবস এবং ফেসবুকের মার্ক জুকারবার্গ আধ্যাত্মিকতার সন্ধানে ভারত সফর করেছিলেন।  এছাড়াও, অনেক হলিউড তারকা বিশ্বাসে মুগ্ধ হয়ে হিন্দু ধর্মে ধর্মান্তরিত হয়েছেন। 

অন্য ধর্মের মানুষেরা মন খুলে হিন্দু ধর্মকে গ্রহণ করছে । হিন্দু ধর্মের আচার-আচরণ নীতি-নিয়ম কে তারা ভালোবেসে পালন করছে । গোটা বিশ্বের কোটি কোটি লোক হিন্দু ধর্ম দ্বারা আকৃষ্ট হচ্ছে ।  হিন্দু ধর্মের প্রতি আকৃষ্ট হওয়ার আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হল যোগ ব্যাম  এবং ধ্যান। শরীর সুস্থ রাখতে হিন্দুধর্মের মুনি-ঋষিরা বহু আগে থেকে যোগ ব্যাম এবং ধ্যান করে আসছে । ধ্যান অর্থাৎ মেডিটেশন আমাদের মনোযোগ কে এক জায়গায় স্থির করতে ভীষণ উপকারী। এমনকি হিন্দু ধর্মের চিকিৎসাশাস্ত্র আয়ুর্বেদ বর্তমানে জটিল রোগ সারাতে সক্ষম।  যার ফল পেয়েছে বহু বিদেশি হিন্দু ধর্মের অনুসারী । তাইতো তারা বার বার ছুটে আসে হিন্দু ধর্মের উৎপত্তি স্থল ভারতে । 

অ্যাপল কোম্পানির মালিক স্টিভ জবস থেকে শুরু করে ফেসবুক এর স্রষ্ঠা মার্ক জুকারবার্গ ভারতে এসেছিলেন। হিন্দু ধর্মের প্রতি আস্থা রেখে তারা জীবনে ভালো ফল পেয়েছেন বলেও স্বীকার করেছিলেন । ফেসবুক এর প্রথম সময় মার্ক ব্যবসা নিয়ে হতাশার সম্মুখীন হলে স্টিভ জবস এর পরামর্শেই উত্তরাখণ্ডের কারলি বাবার আশ্রমে আসে। মার্ক স্বীকারও করেছেন এর পর থেকে তার জীবন দর্শন অনেকটাই বদলে গেছিল। আর তার সফলতার কথা তো সকলেরই জানা।  

এক ধর্ম থেকে অন্য ধর্মের প্রতি ভালো লাগা তৈরি হওয়া সেই প্রাচীনকাল থেকে ঘটে আসছে । বিশ্বের এক নম্বর সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি হলিউডের বহু তারকা নিজেদের ধর্ম ত্যাগ করে হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করেছেন ধর্মটিকে  ভালোবেসে। শুধু তাই নয়  ধর্মের প্রচারে তারা এগিয়ে এসেছে । এমনকি হিন্দু মতে বিবাহ বন্ধনেও আবদ্ধ হয়েছে বহু হলিউড তারকা । 

জর্জ হ্যারিসন

বিশ্ব বিখ্যাত রক ব্যান্ড বিটলস ঋষিকেশের মহারিশি মহেশ যোগীর আশ্রমে এসেছিলেন । সেখানে যোগ সাধনা শিক্ষা গ্রহণ করেছিলেন তারা। সেখানে তারা ৪৮ টি গান রচনা করেছিলেন।  আর তার পরের ইতিহাস তো সবারই জানা । বিটলসের লীড গিটারিস্ট  জর্জ হ্যারিসন ১৯৬০-এর দশকের মাঝামাঝি ভারতীয় সংস্কৃতির প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়েন, তিনি হরে কৃষ্ণ ঐতিহ্যের অনুসারী হয়ে ওঠেন। 

তিনি বলেন , ” ভারতের জনগণের মধ্যে একটি অসাধারণ আধ্যাত্মিক শক্তি আছে যা আমি বিশ্বাস করি না অন্য কোথাও পাওয়া যায়। এখানকার মানুষের সৌন্দর্য, উদারতা, এটাই আমি শেখার চেষ্টা করছি। ” ১৯৬৬  সালে, তিনি উস্তাদ রবি শঙ্করের সাথে দেখা করেন এবং  যেভাবে তিনি সেতারের এক একটি নোট বাজাচ্ছিলেন তা শুনে তার হৃদয়ে প্রেমের সঞ্চার ঘটে এবং সেতারের শব্দ দ্বারা তিনি গভীরভাবে প্রভাবিত হন। এক  বছর পরে, জর্জ  সোনালী জাফরানের ফুল ঘেরা হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত একটি বিস্তৃত গ্রাম শ্রীনগরে তার সেতার পাঠ অব্যাহত রেখেছিলেন। শৈশবে জর্জ একজন উদাসীন ছাত্র ছিলেন, কিন্তু সেই সফরের সময়, তার হাতে প্রায় সবসময় স্বামী বিবেকানন্দের রাজ যোগ এবং পরমহংস যোগানন্দের একটি যোগীর আত্মজীবনী এর মত একটি বই থাকত। 

ম্যাডোনা

হলিউডের পপ কুইন ম্যাডোনা পশ্চিমা সভ্যতার প্রতীক হয়েও হিন্দুধর্ম দ্বারা গভীরভাবে প্রভাবিত হয়েছিলেন। তিনি হিন্দু মহিলাদের মতো পোশাক পরতে পছন্দ করেন এবং আরতিতে অংশ নেন। 

মাইলি সাইরাস

পপ সেনসেশন, হলিউড অভিনেত্রী  মাইলি সাইরাস তার বিতর্কিত কাজের জন্য সমালোচিত হয়েছে বহুবার । কিন্তু আপনি কি জানেন মাইলি হিন্দু ধর্মের একজন গভীর পৃষ্ঠপোষক। কিছু বছর আগে মাইলি গৃহের শ্রী বৃদ্ধির জন্য লক্ষ্মী পুজোর আয়োজন করেছিলেন এবং সেই ছবি নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেল থেকে শেয়ারও করেছিলেন । 

জুলিয়া রবার্টস 

হলিউড অভিনেত্রী জুলিয়া রবার্টস আমেরিকায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন । তার হাসি তার অভিনয়ের মতই সুন্দর। প্রিটি ওমেন, রানওয়ে ব্রাইড, ইট প্রে লাভের মতো সিনেমায় অভিনয়ের জন্য জনপ্রিয় তিনি। ২০১০ সালে ইট প্রে লাভ ছবিটির শুটিং করার সময় ভারতে এসেছিলেন। সেই সময় হিন্দু ধর্ম দ্বারা গভীরভাবে প্রভাবিত হয়েছিলেন তিনি এবং হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন । শুধু তাই নয় তার ছেলেমেয়েদের নাম ও হিন্দুদের নামে রেখেছেন ।  তিনি বলেছিলেন হিন্দু ধর্ম তাঁকে আরও বেশি সহানুভূতিশীল এবং প্রেমময় ব্যক্তি করে তোলে। 

রাসেল ব্রান্ড

বিখ্যাত হলিউড অভিনেতা এবং কমেডিয়ান রাসেল ব্রান্ড হিন্দু ধর্ম অনুসরণ করেন এবং নিয়মিত মেডিটেশন করেন।  হিন্দু ধর্মের প্রতি তার বিশ্বাস এতটাই গভীর যে রাজস্থানে বিখ্যাত গায়িকা কেটি পেরির সঙ্গে হিন্দু মতে তিনি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন।  ব্রান্ড কেটি পেরিকে তাজমহলের সামনে বিয়ের প্রস্তাবও দিয়েছিলেন। হিন্দু মন্ত্র হরেকৃষ্ণ কে তার জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে মানেন তিনি। রাসেলের একজন হিন্দু পরামর্শদাতা রয়েছেন এবং তিনি মন্দিরেও যান। তার এই আধ্যাত্মিকতা তাঁকে মাদকাসক্তি থেকে বেরিয়ে আসতে সাহায্য করেছে বলে তিনি মনে করেন । 

হিউ জ্যাকম্যান

উলভোরাইন খ্যাত তারকা হিউ জ্যাকম্যান হিন্দু ধর্ম মেনে চলেন । ভগবত গীতা, বেদ, উপনিষদ অনুসরণ করেন রীতিমতো । তার বিয়ের আংটিতে  সংস্কৃতে খোদাই করে লেখা রয়েছে  “ওম পরমর ময়নামার” যার অর্থ, “আমরা আমাদের মিলনকে একটি উচ্চ উৎসের কাছে অঙ্গীকার করি।”

রবার্ট ডাউনি

আয়রনম্যান অর্থাৎ হলিউডের বিখ্যাত তারকা রবার্ট ডাউনি জুনিয়র বৌদ্ধ ধর্মে ধর্মান্তরিত হলেও তিনি হরে কৃষ্ণ মতাদর্শেরও দৃঢ় বিশ্বাসী।  তিনি ইসকনের  কৃষ্ণভাবনা অনুসরণ করেন । 

সিলভেস্টার স্ট্যালন 

হলিউড এই তারকা সিলভেস্টার স্ট্যালন তার চরিত্র র‌্যাম্বোর জন্য খুবই বিখ্যাত । এনার সঙ্গে ঘটে যাওয়া  গল্পটা খুবই অনন্য । তিনি প্রায় ৮ বছর আগে তার ছেলেকে হারিয়েছিলেন । এবং তখন থেকেই তিনি তার চারপাশে তার ছেলের আত্মা অনুভব করতেন।  সেই সময় অত্যন্ত অস্থির হয়ে পড়েন তিনি এবং একজন পুরোহিতের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।  তিনি তার ছেলের  পিন্ডদান করার পরামর্শ দেন । তারপরে, স্ট্যালোনের পুরো পরিবার – তার  ভাই মাইকেল স্ট্যালোন, তার স্ত্রী মিশেল, রাশিয়ান চলচ্চিত্র তারকা অ্যালেক্সি এবং তার স্ত্রী ওলগা  হরিদ্বারের কাছে কানখালের সতী ঘাটে পিন্ডদান সম্পন্ন করেন।  এ ঘটনার পর থেকেই হিন্দু ধর্মে স্ট্যালোনের বিশ্বাস আরও গভীর হয়ে যায় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.