২০০২ সাল থেকে সার্ভিস দিচ্ছে। সেনাবাহিনীর হাতে আসতে চলেছে রাশিয়ার এই বিধ্বংসী হেলিকপ্টারটি

নিউজ ডেস্কঃ ভারত এবং  রাশিয়ার বন্ধুত্বের কথা সকলেরই জানা। বিশেষ করে ডিফেন্সের ক্ষেত্রে। ১৯৭১ এর যুদ্ধে সারা পৃথিবীর বিরুদ্ধে গিয়ে ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছিল রাশিয়া।

সাবমেরিন থেকে শুরু করে যুদ্ধবিমান বা হেলিকপ্টার। রাশিয়ার এইসকল জিনিস প্রচুর পরিমাণে রয়েছে ভারতের কাছে। এবং ভবিষ্যতে আরও প্রচুর পরিমাণে আসতে চলেছে ভারতের হাতে।

রাশিয়ার থেকে হেলিকপ্টার ক্রয় করার ব্যাপারে অনেক আগেই চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। সব ঠিকঠাক থাকলে আগামি বছর ভারতের সেনাবাহিনী এবং নৌবাহিনীতে যোগ দেবে রাশিয়ার হেলিকপ্টার কামভ কা ২২৬।

এটি একটি টুইন ইঞ্জিন ইউটিলিটি হেলিকপ্টার। ১৯৯৭ সালে প্রথম উড্ডয়ন করতে দেখা গেলেও ২০০২ সালে প্রথম সার্ভিসে আসে। এখনও সেভাবে কেউ ব্যবহার করেনা এই হেলিকপ্টারটি। তবে কিছুদিনের মধ্যেই রাশিয়া, আর্জেন্টিনা, ইউক্রেন এবং প্রচুর পরিমাণে ভারতের আকাশে উড়তে দেখা যাবে হেলিটিকে।

এটি একাধিক কাজ করতে সক্ষম গ্রাউন্ড আট্যাক, এয়ার আসল্ট অর্থাৎ ভার্টিক্যাল টেক অফ এবং ল্যান্ডিং, মিলিটারি লজিস্টিক অর্থাৎ মিলিটারিদের খাদ্য সামগ্রি, ওষুধ, জামাকাপড়,  মেডিক্যাল জিনিস, এবং হিমালয়ের খারাপ আবহাওয়াতে ট্রুপ নিয়ে যাওয়া নিয়ে আসার মতো কাজ করতে সক্ষম।

১৯৯৬ সাল থেকে এটি তৈরি কাজ শুরু হয়।

এখনও পর্যন্ত এটি রাশিয়া- ৪২ টি, আর্জেন্টিনা-৩ টি এবং ভারতবর্ষ-২০০ টি অর্ডার করেছে।

২ জন ক্রিউ এবং ৭ জনকে নিয়ে উড়তে সক্ষম। অর্থাৎ ১০৫০ কেজি নিতে পারে।

২৫ ফুট লম্বা ১৩ ফুট চওড়া। মত ৩৮০০ কেজি বহনে সক্ষম।

সর্বচ্চ ২৫০কিম/ঘণ্টা গতিবেগে উড়তে উড়তে সক্ষম। তবে প্যাসেঞ্জার নিয়ে ২২০ কিমি/ঘণ্টা।

সর্বচ্চ ২০৩০০ ফুট উচ্চতা থেকে উড্ডয়ন করতে পারে হেলিটি।

একবারে ৬০০ কিমি পর্যন্ত উড়তে সক্ষম এই হেলিকপ্টারটি। তবে প্যাসেঞ্জার নিয়ে এটি ১৫০০০ ফুট উচ্চতা দিয়ে উড়তে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *