সুপার কাপে খেলা নিয়ে ইস্টবেঙ্গলে বিতর্ক অব্যাহত

স্পোর্টস ডেস্কঃ সুপার কাপে খেলা নিয়ে অন্তঃকলহ অব্যাহত ইস্টবেঙ্গলের। দাবিদাবা না মানলে সুপার কাপে খেলবে না এরকমই সিদ্ধান্ত ইনভেস্টার কোয়েস ইস্টবেঙ্গলের কর্নাধার অজিত আইজ্যাকের। অন্যদিকে লালহলুদ সচিব এবং অন্যতম ডিরেক্টর কল্যাণ মজুমদারের দাবি সুপার কাপে খেলবে ক্লাব। কোনও কারনেই সুপার কাপ থেকে সরে দাঁড়াতে রাজি নন ক্লাব সচিব। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই সুপার কাপে খেলা নিয়ে বিতর্ক বাঁধল কর্তাদের মধ্যে। মোহনবাগান, আইজল, মিনার্ভা সহ আইলিগের বেশ কয়েকটি দল সুপার কাপে না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অন্যদিকে ইস্টবেঙ্গল কর্তারা সুপার কাপে খেলতে আগ্রহী। আর এর ফলে ময়দানে গুঞ্জন- তা হলে কি কোয়েসের সঙ্গে সমস্যা তৈরি হয়েছে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের?

অধিকাংশ সমর্থকের ধারনা ক্লাবের ইনভেস্টার হওয়ার বেশি শেয়ার কোয়েসের নিয়ন্ত্রনে। তাই সুপার কাপে না খেলার দাবি জানিয়ে ক্লাবে প্রভাব বিস্তর করতে চাইছেন কোয়েসের কর্ণধার। আর এটা কিছুতেই মেনেনিতে রাজিনন লালহলুদ কর্তারা। এরমধ্যেই সুপার কাপের জট কাণ্ডে নতুন মোড় নিয়েছে। ফেডারেশান সচিব কুশল দাস একটি চিঠি পাঠিয়েছেন ইস্টবেঙ্গল সভাপতি ডক্টর প্রনব দাসগুপ্তকে। ফেডারেশান সচিব জানতে চেয়েছেন ইস্টবেঙ্গল সুপার কাপে খেলবে কিনা? তা জানাতে হবে ১৮ মার্চের মধ্যে। আর এই এস এলে খেলতে হলে তা জানাতে হবে ২০ মার্চের মধ্যে।

ফলে এ থেকেই বোঝা যায় ফেডারেশান কর্তারা ইনভেস্টারকে নয় প্রাধান্য দিয়েছেন ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের। আর ফেডারেশানের চিঠি পাওয়ার পরই নড়েচড়ে বসেছেন লালহলুদ কর্তারা। সোমবার ১৮ মার্চ সভা ডেকেছেন লালহলুদ কর্তারা। সেই সভাতেই ঠিক হবে ইস্টবেঙ্গল সুপার কাপ এবং এই এস এলে খেলবে কিনা! আইলিগে ইস্টবেঙ্গলের নাম নথিভুক্ত হয়েছে কোয়েস ইস্টবেঙ্গল নাম দিয়ে। তাহলে কোয়েস ইস্টবেঙ্গলের থেকে চিঠি না দিয়ে ফেডারেশান সচিব হটাথ করে কেন ইস্টবেঙ্গল সভাপতিকে চিঠি দিয়েছেন? আর এ নিয়েই ইস্টবেঙ্গলে বিতর্ক চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *