সংস্কৃত মানবজাতির জাতির জন্য এক বিরাট উপহার, যা শুনলে মনে শান্তি আসে

সুমিত, কলকাতাঃ ভারতবর্ষে ভাষা কতগুলি? এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানতে গেলে হয়ত বেশ কয়েক হাজার বছরের পুরনো ইতিহাস ঘাটতে হবে। এবং তার পরেও সঠিক উত্তর পাওয়া যাবে কিনা সেই বিষয় প্রশ্ন রয়েছে। কারন এতো হাজার বছরের ইতিহাস জানার পর সঠিকভাবে গবেষণা করাটা হয়ত একটু অসুবিধাই হবে। বর্তমানে ২২ টি ভাষাকে ভারতীয় সংবিধান অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। অফিশিয়াল কাজে আমরা বেশিরভাগ ইংরেজি ব্যবহার করে থাকলেও আমাদের প্রধান ভাষা হল হিন্দি। আর এই হিন্দি ভাষার প্রচলন হল কোথা থেকে? কোথা থেকেই বা আসল এই ভাষা? একবার ভেবে দেখেছেন?

সংস্কৃত। ভারতবর্ষের অধিকাংশ ভাষা যে ভাষা থেকে এসেছে। হিন্দি থেকে শুরু করে বাংলা, পাঞ্জাবি বা গুজরাটি যেই ভাষাই বলে থাকিনা কেন। এই সকল ভাষার উৎস হল সংস্কৃত। আর সেই সংস্কৃত ভাষাভাষীর মানুষ খুঁজতে গেলে হয়ত বেশ কঠিন পরিশ্রম করতে হবে। একবারও কি ভেবে দেখেছেন যে, যেই ভাষার সাথে ভারতবর্ষের মানুষের নাড়ীর টান সেই ভাষা শেখা তো দূরের কথা সেই ভাষা সম্বন্ধে অবগত নই আমরা। তবে সেই ভাষা আজও মানুষের মন থেকে উঠে যায়নি এই ভাষা যে আদি ভাষা এই ভাষার সাথে শুধু “ভারতবর্ষের মানুষের নয় সারা পৃথিবীর মানুষের নাড়ীর টান”। যে ভাষা বললে বা শুনলে “মন শুদ্ধ, পবিত্র এবং মনকে শান্ত রাখতে সাহায্য করে”। এমনটাই মত লন্ডন নিবাসি গ্যাব্রিয়ালা বার্নেলের। পেশায় গান লেখক এবং গায়িকা গ্যাব্রিয়ালা মাত্র ৫ বছর বয়েসে সংস্কৃত পরা শুরু করে। বর্তমানে গ্যাব্রিয়ালার গান ভারত তথা সারা পৃথিবীর মানুষের মন কেড়েছে। সংস্কৃতে তাঁর গান প্রচুর ভারতবাসীর কাছে এখন প্রেরণা।

সংস্কৃত কেন পড়া উচিৎ? কেনই বা সংস্কৃত শব্দ বলা উচিৎ? তিনি জানান যে “এই ভাষা আমাকে ভালো থাকতে সাহায্য করে, অপর মানুষকে ভালবাসতেও” “সংস্কৃত শেখার ফলে আমার ইংরেজি শিখতে খুবই সুবিধা হয়েছে”। “সংস্কৃত শেখার ফলে আমার যে কোনও অসুবিধার সম্মুখিন হতে সাহায্য করার পাশাপাশি আমাকে সেই অসুবিধা থেকে বেড়িয়ে আসতে সাহায্য করে এই ভাষা”। “এমনকি মনমরা অবস্থায় থাকলেও সংস্কৃত বললে সেই অবস্থা থেকে বেড়িয়ে আসতে পারি আমি”। “সংস্কৃত মনুষ্য জগতের জন্য এক বিরাট উপহার” “সারা পৃথিবী থেকে শুরু করে ভারতবর্ষের জন্য” সংস্কৃত শুধু নিজের ক্যারিয়ার গড়তে বা নিজের পড়াশুনা করতেই নয় লোকের সাথে সুন্দর সম্পর্ক তৈরি করতেও সাহায্য করে থাকে”। “এটি এমন এক ভাষা যা নিজেকে মানুষের সামনে তুলে ধরতেও সাহায্য করে থাকে”।

গ্যাব্রিয়ালা সংস্কৃত পড়ার ফলে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়য়ে তাঁর অপর খুশি হয়েছিলেন যিনি ইন্টার্ভিউ নিচ্ছিলেন। সংস্কৃত এমন এক ভাষা যা নিজের ক্যারিয়ার গড়তেও সাহায্য করে থাকে। আজ সংস্কৃত শেখা তো দূর কি বাত কাউকে বলতেও শোনা যায়না। আর যারা এই ভাষা নিয়ে চর্চা করে থাকেন তাদের দেখা মেলা ভার। তবে এই আদি ভাষা আজও পৃথিবীর কোনায় কোনায় প্রচুর মানুষের হৃদয়ে রয়েছে ভারতের এই আদি ভাষা। আর তাঁরই অন্যতম প্রমান হল গ্যাব্রিয়ালা। গ্যাব্রিয়ালাকে অনেক শুভেচ্ছা এন নিউজের পক্ষ থেকে সংস্কৃতের মতো ভাষাকে সারা দুনিয়ার সামনে তুলে ধরার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *