নতুন মরশুমে অ্যাকোস্টা, কোলাডোকে রাখতে আগ্রহী নন ইস্টবেঙ্গল কর্তারা

স্পোর্টস ডেস্কঃ গত ১৩ বছরের মতো এবারও তীরে এসে তরী ডুবেছে ইস্টবেঙ্গলের। নতুন মরশুমের ইস্টবেঙ্গল আই এস এলে খেলবে কিনা তা নিয়ে রয়েছে ঘোর অনিশ্চয়তা। তবু গত মরশুমের ব্যর্থতা ভুলে নতুন মরশুমের জন্য শক্তিশালি দল গড়তে নেমে পড়েছেন লাল হলুদ কর্তারা। গত মরশুমে ভালো খেললেও নতুন মরশুমে দল ছাড়ার দিকে পা বাড়িয়ে রেখেছেন জবি জাস্টিন। নতুন মরশুমের জন্য লাল হলুদ কর্তারা ইতিমধ্যেই সই করিয়েছেন বিদেশি ডিফেন্ডার বোর্জা, পেরেজ গোমেজকে। তাঁর সঙ্গে চুক্তি হয়েছে দু মরশুমের জন্য বোর্জাকে দলে রাখলেও নতুন মরশুমের জন্য বিশ্বকাপার জনি অ্যাকোস্টাকে রাখা হবে কিনা তা নিয়ে রয়েছে অনিশ্চয়তা। এমনকি টনি ডোভালের সঙ্গে চুক্তি বাড়াতে নারাজ লালহলুদ কর্তারা।

অ্যাকোস্টা, ডোভালকে না রাখলেও স্প্যানিস স্ট্রাইকার কোলাডোকে রেখে দেওয়ার চেষ্টা করছেন ইস্টবেঙ্গল কর্তারা। ঘরের ছেলে ব্র্যান্ডনের সঙ্গেও চুক্তি হয়েছে লালহলুদ কর্তাদের। এছাড়া চুলোভা, রালতে, সামাদকে রেখে দেওয়ার ভাবনায় কর্তারা। তবে এই তিন ফুটবলার দলে থাকবেন কিনা তা নিয়ে রয়েছে অনিশ্চয়তা। কারন ইস্টবেঙ্গল আই এস এলে না খেললে চুলোভা, রালতেরা দলে থাকতে রাজিনন। চুলোভা, রালতে সামাদের কাছে আই এস এল ফ্র্যাঞ্চাইজির প্রস্তাব রয়েছে। তাই ইস্টবেঙ্গল আই এস এলে না খেললে দল ছাড়তে পারেন তিন ফুটবলার। নতুন মরশুমের ইস্টবেঙ্গলের অধিনায়কের দায়িত্ব পেতে পারেন সামাদ। গত মরশুমে তাঁর হাতেই অধিনায়কের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু চোটের জন্য তিনি প্রথম একাদশে ছিলেন না।

সামাদের পরিবর্তে অধিনায়কত্ব করেন লালরিন্দিকা রালতে। তাই এবার সিনিয়ির খেলোয়াড় হিসাবে সামাদকে অধিনায়কত্ত্বের দায়িত্ব তুলে দিতে চান ক্লাব কর্তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *