ওমেন এম্পাওয়ারমেন্ট কি? উত্তর মিলবে ৮ই মার্চ

সুমিত, কলকাতাঃ ট্রেলর লঞ্চেই আরও একবার বোঝা গেল যে বাংলা ছবি মানেই কপি পেস্ট নয়। লাইনটা পড়ে অনেকেই হয়ত বিস্মিত। কারন আজকাল বাংলা ছবি মানেই দর্শক ধরে নেয় যে এই ছবি নিশ্চয়ই কোনও দক্ষিন এর ছবির নকল। তবে এখানেই আলাদা শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় এবং নন্দিতা রায়। বাংলা চলচ্চিত্র জগতের এই জুটি একটা জিনিস এতদিনে প্রমান করেছেন যে “উই উইল ক্রিয়েট সাম নিউ”। একটা দক্ষিনের ছবি দেখতে যাওয়া মানেই কিছু নতুন গল্প দেখা। ঠিক তেমনটা বাংলা ছবির ক্ষেত্রে দেখা যায়না। তবে শিবপ্রসাদ এবং নন্দিতা রায়ের তৈরি ছবি বাংলা নয় গোটা ভারতবর্ষে এটা ইতিমধ্যেই প্রমান করেছে যে এই জুটির ছবি মানেই নতুন স্বাদের কিছু পাওয়া। তবে তাদের কেউই এই ছবিটি পরিচালনা না করলেও তাদেরই প্রচেষ্টায় আরও একবার নতুন গল্পের স্বাদ পেতে চলেছে বাংলার চলচ্চিত্র জগত।

নবাগত পরিচালক পৃথা চক্রবর্তীর নতুন ছবি “মুখার্জী দার বৌ”। গল্প লিখেছেন সম্রাজ্ঞী বন্দ্যোপাধ্যায়। উইন্ডোস প্রোডাকশনের ব্যানারে তৈরি ছবিটির প্রধান চরিত্রে অনুশুয়া মজুমদার এবং কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরাই “মুখার্জী দার বৌ”। বৌমা এবং শাশুড়ি। এই দুই মুখার্জী দার বৌকে নিয়েই ছবি, যেখানে মনোবিদের ভূমিকায় দেখা যাবে ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তকে। ছবির মূল বিষয়বস্তু ওমেন এম্পাওয়ারমেন্ট।

ছবির ট্রেলর লঞ্চে হাজির ছিলেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, অনুশুয়া মজুমদার, কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, বাদশা মৈত্র। ছবির পরিচালক পৃথা ভীষণই এক্সাইটেড। তবে ছবির পরিচালক থেকে শুরু করে অভিনেতা সকলের একই কথা বাস্তব সমাজের প্রেক্ষাপটে তৈরি এই ছবি সকলের মনোগ্রাহী হবে। ছবির কাস্ট অ্যান্ড ক্রিউ থেকে শুরু করে গোটা টিম। এক ঝাঁক মহিলাকে সঙ্গে নিয়েই তৈরি এই ছবি। ৮ই মার্চ নারী দিবসে মুক্তি পাবে “মুখার্জী দার বৌ”। যেখানে দেখা যাবে ওমেন এম্পাওয়ারমেন্টের খুঁটিনাটি বিষয়গুলি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *