লাইফস্টাইল

রক্তে শর্করার পরিমাণ কমাতে চাইলে লাল আপেল নাকি সবুজ আপেল খাবেন?

নিউজ ডেস্কঃ বাজারে সবুজ এবং লাল এই দুই ধরনের আপেল দেখতে পাওয়া যায়।তাই কেনার সময় অনেকের মধ্যেই এই দ্বন্ধ দেখতে পাওয়া যায় যে কোন আপেলটি সে কিনবে?কারন বর্তমান দিনে মানুষ অনেকবেশি স্বাস্থ্য সচেতন হয়ে গিয়েছে।তাই কোন কিছু কেনার আগে সবার আগে মাথায় আসে যে সেটি স্বাস্থ্যসম্মত কি না।তাই  কোন আপেলটি আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য বেশি উপকারি এই বিষয়টি নিয়েও দ্বিধায় পরে যায় মানুষ।তাহলে জেনে নিন লাল নাকি সবুজ কোন রঙের আপেল খাওয়া আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারি?   

সবুজ আপেল প্রচুর পরিমানে ভিটামিন এ উপাদান থাকে।এই ভিটামিন উপাদানটি লাল আপেলের থেকে দ্বিগুণ পরিমাণে থাকে সবুজ আপেলের মধ্যে।ভিটামিন এ দৃষ্টিশক্তি উন্নত, হাড়ের শক্তি বাড়ানো, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে বিশেষভাবে সাহায্য করে।তাই ভিটামিনের পরিমান বেশি পেতে খান সবুজ আপেল।

লাল আপেল  মিষ্টি স্বাদের হওয়ার কারনে এর মধ্যে কার্বোহাইড্রেট বেশি পরিমানে থাকে তবে ফাইবার বা আঁশ কম পরিমানে থাকে।তবে সবুজ আপেলে কার্বোহাইড্রেট পরিমানে কম থাকে৷যার জন্য যারা ডায়েট করেছেন তারা কম ক্যালরিযুক্ত খাবার খেতে লাল এবং সবুজ আপেলের মধ্যে বেছে নিন সবুজ আপেলকেই। 

লাল আপেলের মধ্যে বিভিন ধরনের অ্যান্টি–অক্সিডেন্ট যেমন-  পেকটিন, কোয়ারেকটিন ও ফ্ল্যাভোনয়েড ইত্যাদি।তাই অ্যান্টি–অক্সিডেন্টের সবুজ আপেলের তুলনায় লাল আপেলের মধ্যে প্রচুর পরিমানে রয়েছে। 

লাল আপেলের তুলনায় সবুজ আপেল মধ্যে প্রচুর পরিমানে  আয়রন, পটাশিয়াম এবং প্রোটিন থাকে। 

রক্তে শর্করার পরিমাণ কমাতে চাইলে লাল আপেলের পরিবর্তে সবুজ আপেল খেতে পারেন। 

বিশেষজ্ঞদের মতে, আপেলের পুষ্টিগুণ বিবেচনা করলে দেখা যায় যে লাল আপেলের তুলনায় সবুজ আপেল খাওয়া বেশি উপকারি। তবে  লাল আপেল খেলেও কম উপকার পাবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *