পুদুচেরি থেকে পুস্কর। অল্প খরচে ভারতবর্ষের কোন স্থান গুলি থেকে ঘুরে আসতে পারবেন?

নিউজ ডেস্ক  –   অনেক ভ্রমণপিপাসু ব্যক্তিরা রয়েছেন যারা বছরে অন্তত ২-৪টে টুর করা পছন্দ করেন। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি কিছুটা ডামাডোল। একেতে কোভিড  তার জেরে ঘরবন্দি বহু মানুষ। এমতাবস্থায় ইনকাম প্রায় নেই বললেই চলে। তবে আর্থিক সঙ্কটের কারণে ঘুরতে যাওয়া বন্ধ হতে পারে না।  সেই জন্য অল্প খরচে বেশকিছু জনপ্রিয় স্থান ঘুরে আসা যেতেই পারে।   অল্প খরচে যে জায়গাগুলো ঘুরে যায় সেগুলি হল — 

১)  নৈনিতাল–   ভ্রমণের জন্য পর্যটকদের কাছে অন্যতম স্থান হল নৈনিতাল।  এটি উত্তরাখন্ডের এমন  জায়গায় অবস্থিত সেখানকার চারপাশের পরিবেশ খুবই সুন্দর, শান্ত এবং মনোরম প্রকৃতির। এমনকি এই জায়গা ভ্রমণের জন্য খুব কম খরচ হয়। শেখাওনি বছরের প্রায় প্রত্যেকটা দিন এখানে পর্যটকদের ভিড় দেখা যায়।  নৈনিতালের প্রধান আকর্ষণীয় স্থান হচ্ছে  নৈনি লেক। এছাড়াও এখানে জনপ্রিয় রয়েছে ভিমতাল,  সাত তালের মতো একাধিক স্থান।  

২) মাউন্ট আবু —   অল্প খরচে ভ্রমণ স্থান গুলির তালিকা রয়েছে মাউন্ট আবু।  রাজস্থানের এই অঞ্চলটি পর্যটকদের কাছে জনপ্রিয় হিল স্টেশন।  এখানে আকর্ষণীয় হচ্ছে পাহাড়ের উপর দিলওয়ারা জৈন মন্দির।  এছাড়াও মাউন্ট আবু থেকে আরাবল্লী পাহাড়ের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করা যায়।  অর্থাৎ যারা পাহাড় প্রেমি তারা এখানে ঘুরে আসতে পারেন।  

৩) ধনলৌটি —    পর্বত শ্রেণীর পর্যটন স্থান গুলোর মধ্যে অন্যতম ধনলৌটি। এটি উত্তরাখন্ডের একটি আদর্শ পর্যটন স্থান।  মুসৌরি থেকে মাত্র  ২৮ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।  এখানকার আকর্ষণীয় স্থান হচ্ছে সবুজ প্রকৃতি।  শৈল শহরের চারিদিক দেবদারু ও পাইন গাছে মোরা।  মনোরম পরিবেশ উপভোগ করতে এখানে ছুটে যায় বহু পর্যটক।  

৪) পুদুচেরি — তামিলনাড়ু দক্ষিণ পূর্ব উপকূলে অবস্থিত পুদুচেরি। এই পর্যটন স্থানটিতে এখনো ফরাসি স্থাপত্যগুলোর নিদর্শন পাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে মাত্র অল্প খরচে বিদেশে ভ্রমণ করার অভিজ্ঞতা দেয় পুদুচেরি। এখনও এখানকার মানুষরা  পূর্বের শিল্প, সংস্কৃতি ও স্থাপত্য বজায় রেখেছে। এই জায়গাটি সম্পূর্ণ নতুনরূপে সেজে ওঠে বড়দিনে  । সেজন্য অন্যান্য দিনের তুলনায় ক্রিসমাসে এখানে ভিড় দেখা যায় চোখে পড়ার মতো। 

৫) কাসোল  — হিমাচল প্রদেশের পার্বতী নদীর তীরে অবস্থিত ছোট্ট অথচ সুন্দর জায়গা হচ্ছে কাসোল।  এখানে সবুজে মোরা প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের  পাশাপাশি পর্যটকদের আকর্ষণ করে অনেকগুলি ট্রেকিং রুট। সেকারণে ট্র্যাকিং করে রোমাঞ্চকর অনুভূতির সাক্ষী হতে শুধুমাত্র ভারতীয় নয় বিদেশিরাও ছুটে আসে এই স্থানে। খুব অল্প ব্যয়ে রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতা পেতে এখানে ছুটে যায় বহু পর্যটকরা।  

৬) পুষ্কর —   রাজস্থানের একটি অন্যতম আকর্ষণীয় জায়গা হল পুষ্কর।  ব্রহ্মা মন্দির এবং পশু মেলা বিশেষ বিখ্যাত। তবে শুধুমাত্র ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান নয় এখানে রয়েছে রাজস্থানী ঐতিহ্যের স্বাদ। অর্থাৎ আধ্যাত্বিক এবং ঐশ্বরিক বিষয়টি মিলেমিশে আরও আকর্ষণীয় করে তুলেছে পুস্করকে। অল্প খরচে দেস্টিনি জায়গা হিসেবে আদর্শ  রাজস্থানের এই ছোট্ট শহর পুষ্কর।

Leave a Reply

Your email address will not be published.