আপনার গর্ভের সন্তানের ক্ষতিকর করছে নেইলপলিশ, পারফিউম, বডি স্প্রে। জানুন বিস্তারিত

নিউজ ডেস্কঃ মহিলারা আরও কিছু করুক না করুক তারা সব সময় তাদের সাজগোজ নিয়ে সচেতন থাকে।কিভাবে তাদের ভালো লাগবে, কি লাগালে তাদের আরও সুন্দর দেখাবে?এইসব বিষয় নিয়ে তারা সবসময় ব্যস্ত থাকে তাই নানান ধরনের কসমেটিক্স ব্যবহার করে যেমন বিভিন্ন ধরনের ক্রিম, ফাউন্ডেশন, লিপস্টিক, অ্যান্টি এজিং ক্রিম, ব্রণ তাড়ানোর ক্রিম, ফর্সা হওয়ার ক্রিম ইত্যাদি৷এমনকি গর্ভাবস্তায়ও মহিলারা বিভিন্ন কসমেটিক্স ব্যবহার করে থাকেন৷তবে আপনি কি জানেন কে গর্ভবস্থায় এই কসমেটিক্সের ব্যবহার আপনার সন্তানের উপর কি প্রভাব ফেলে?।তাই গর্ভবস্থার সময় কিছু ধরনের প্রসাধনী এড়িয়ে চলাই ভাল৷এই নিয়ে চিকিৎসকেরা কোন পরামর্শ দেন না৷কিন্তু একটি  গবেষণায় দেখা গেছে যে রেটিনয়েডস, লেড, পারাবেনস বর্তমান প্রসাধনী ব্যবহার করলে দেহে হরমোনের পরিবর্তন দেখা যায় আর যার ফলে গর্ভজাত সন্তান বিকলাঙ্গ বা মানসিক ভারসাম্য হীন হতে পারে৷তাই কি কি ধরনের কসমেটিক্স গর্ভবস্থার সময় এড়িয়ে চলবে জেনে নিন।

লোশন, ক্রিম, টোনার, ফাউন্ডেশন ইত্যাদি জিনিসে পারাবেনস নামক উপাদানটি থাকে যা গর্ভবস্থায় ব্যবহার করা একদম উচিত নয়। তাই পারাবেনস নামক উপাদানটি যেসমস্ত প্রসাধনীতেই থাকে বা  প্রসাধনীর গায়ে এই নামের উল্লেখ থাকলে সেটি ব্যবহার না করাটায় ভাল আপনার পক্ষে৷

বলিরেখা ও ব্রণ দূর করে ত্বকের কোলাজেনের সমতা বজায় রাখার জন্য আমরা রেটিলন যা একধরনের ভিটামিন এ ব্যবহার করে থাকি৷ কিন্তু আপনারা জানেন যে অতিরিক্ত ভিটামিন এ আপনার সন্তানের উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে। এই জন্য গর্ভাবস্থার সময় ভিটামিন এ যুক্ত ক্রিম ব্যবহার করার থেকে নিজেকে বিরত রাখুন৷

নেইলপলিশ, পারফিউম, বডি স্প্রে , হেয়ার স্প্রে ইত্যাদি জিনিসে প্যাথালেটস নামক একটি উপাদান ব্যবহার করা হয়৷যা আপনার সন্তানের উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে।তাই এই উপাদান যেসমস্ত জিনিসে ব্যবহৃত হয় সেগুলি ব্যবহার করা থেকে নিজেকে বিরত রাখুন। ২০০৫ সালের একটি পরীক্ষায় থাকে জানা গেছে যে প্যাথালেটস যারা বেশি ব্যবহার করেন তাদের ক্ষেত্রে গর্ভজাত জিনের ক্ষতিকর পরিবর্তন হয়৷

গর্ভাবস্থার সময় এমন কোন প্রসাধনী ব্যবহার করা উচিত না যা ত্বক দ্রুত শুষে নিতে পারে এবং রক্তের সঙ্গে মিশে যায়৷যেমন- হেয়ার রিমুভাল ক্রিম, পারফিউম ইত্যাদি কসমেটিক্স ব্যবহার করা উচিত নয়৷

বর্তমানদিনে প্রচুর টুথ পেস্টে পেরোক্সাইড ব্যবহার করা হয় যাতে দাঁত সাদা থাকে৷ তাই এই ধরনের টুথ পেস্টে ব্যবহার করা উচিত নয় কারন পেরোক্সাইড দাঁত সাদা করে যা  একটি ব্লিচিং পদ্ধতি৷

লিপস্টিকে লেড বা শিসা ব্যবহার করা হয়৷যা আপনার শিশু পক্ষে খুবই ক্ষতিকারক।সম্প্রতি একটি পরীক্ষায় দেখা গেছে যে শিসার ফলে ক্যানসার বা শিশু বিকলাঙ্গ হতে পারে৷তাই গর্ভবস্থায়  দামি কমদামি যে কোনধরনের লিপস্টিক ব্যবহার করার থেকে নিজেকে বিরত রাখুন।কারন নামীদামি কোম্পানীর লিপস্টিকেও শিসা পাওয়া গেছে৷

এই জন্য গর্ভাবস্থার সময় প্রসাধনী ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু সতর্কতা মেনে চলার উচিত৷ তবে যে সমস্ত প্রোডাক্টেই যে খারাপ উপাদান থাকে তা নয়৷কিন্তু বাইরের প্রোডাক্ট ব্যবহার করার চেয়ে ভাল  প্রকৃতিক উপাদান সমৃদ্ধি প্রোডাক্ট ব্যবহার যা আপনারা ঘরে বসেই করতে পারবেন৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.