মানসিক চাপ কমায় এবং ত্বকের রোগ সারায়। কাঁঠালের বীজের অসাধারন ৫ টি উপকারিতা

নিউজ ডেস্কঃ কাঁঠাল। বাঙালির অন্যতম প্রিয় ফল। তবে কাঁঠালের পাশাপাশি কাঁঠালের বীজ অনেকেই রান্নার কাজে ব্যবহার করে থাকেন। শুধু তাই নয় এই বীজের উপকারিতা রয়েছে দারুন।

বলিরেখা দূর করেঃ ত্বকের বলিরেখা থেকে মুক্তি পেতে কাঁঠালের বীজের কার্যকারিতা অনস্বীকার্য।তাই ত্বকের থেকে বলিরেখা দূর করতে গেলে কোল্ড ক্রিমের সাথে কাঁঠালের বীজ পিষে পেস্ট তৈরি করে নিয়মিত ত্বকে লাগান।দেখবেন বলিরেখা দূর হবে এবং ত্বকেও করে তুলবে সজীব ও তরতাজা।এছাড়াও দু-একটি বীজ সামান্য দুধ ও মধুতে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন।তারপর ওইগুলো দিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করে নিয়ে ত্বকে লাগিয়ে শুকিয়ে নিন।তারপর উষ্ণ গরম জল দিয়ে মুখটা ধুয়ে ফেলুন।দেখবেন ত্বকে উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে।

মানসিক চাপ কমায় এবং ত্বকের রোগ সারায়ঃ কাঁঠালের বীজে রয়েছে প্রোটিন এবং মাইক্রোনিউট্রিইয়েন্টস যা মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করে।ত্বকের বিভিন্ন ধরনে রোগ সারাতেও সাহায্য করে।যেমন ত্বকের ময়েশ্চারের মাত্রা বেশি রাখতে এবং স্বাস্থ্যকর চুল পেতে নিয়মিত কাঁঠালের বীজ খাওয়া ভালো।

রক্তস্বল্পতার সমস্যা দূর করতে সাহায্য করেঃ কাঁঠালের বীজে থাকে প্রচুর পরিমানে আয়রন এবং হিমোগ্লোবিনের একটি উপাদানও থাকে। তাই কাঁঠালের বীজ রক্তস্বল্পতার সমস্যা দূর করতে সক্ষম।এছাড়াও আয়রন মস্তিস্ক এবং হার্টকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

স্বাস্থ্যকর চুল এবং ভালো দৃষ্টিশক্তি রাখেঃ কাঁঠালের বীজে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন এ থাকে।যা চোখের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারি।তাই এটি রাতকানা রোগ প্রতিরোধেও সাহায্য করে।শুধুমাত্র যে ভিটামিন এ চোখের স্বাস্থ্যই ভালো রাখে তা নয় ভিটামিন এ চোখের স্বাস্থ্যের পাশাপাশি চুলের স্বাস্থ্যও ভালো রাখে।

হজমশক্তি বাড়ায়ঃ কাঁঠালের বীজ হজমশক্তি বাড়াতে কার্যকারী ভূমিকা পালন করে।এছাড়াও এতে রয়েছে উচ্চমাত্রায় ফাইবার যা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যাকে দূরে রাখতে সাহায্য করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.