ডিজিটাল মুদ্রাতে অর্থ বিনিয়োগ করার সহজ উপায়

নিউজ ডেস্কঃ ক্রিপ্টোকারেন্সী জিনিসটা ভারতে এখনো অপেক্ষাকৃত বেশ নতুন। ফলে, ক্রিপ্টোয় বিনিয়োগ নিয়ে সঠিক ধারণা থাকে না অনেকেরই। তবু, চড়া রিটার্নের আশায় অনেকেই তাড়াহুড়োয় ক্রিপ্টোয় ইনভেসমেন্ট করেন।

কিন্তু ব্যাপার হল,শেয়ার এবং ডিবেঞ্চারগুলিতেতে যেমন বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষার জন্য ট্রেডিংয়ের ওপর কড়া নজর থাকে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংক এবং ভারতের সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ বোর্ডের। সেখানে ক্রিপ্টোকারেন্সিতে এরকম তৃতীয় কোনো পক্ষের নিয়ন্ত্রণ থাকেনা। ক্রিপ্টোকারেন্সির ক্ষেত্রে যাবতীয় লেনদেন এবং অপারেশনগুলি সরাসরি ক্রিপ্টো কমিউনিটির দ্বারাই নিয়ন্ত্রিত এবং বিনিয়োগের ওপর ছড়া সুদ মিললেও ক্রিপ্টোর বাজার অত্যন্ত অস্থির ও বিনিয়োগের পর আর তা আর রিভার্স করা যায় না।

অতএব ক্রিপ্টোয় অর্থ বিনিয়োগের আগে নিম্নলিখিত কয়েকটি টিপস মাথায় রাখা জরুরি:

বিনিয়োগের আগে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ হলো সঠিক ট্রেডিং প্ল্যাটফর্ম বা ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ ওয়েবসাইট খুঁজে বের করা। বর্তমানে বাড়ি বসে সহজেই ক্রিপ্টো ট্রেডিং করা সম্ভব ওয়াজিরক্স, মুদ্রা ডিসিএক্স এবং কয়েনসুইচ কুবেরের মতো ওয়েবসাইট থেকে। বিনিয়োগের আগে সময় নিয়ে পছন্দ মতো ক্রিপ্টো ট্রেডিং সাইট খুঁজে পাওয়া গেলেই বাকি কাজ অনেকটা সহজ হয়ে যায়।

ট্রেডিং প্ল্যাটফর্ম পছন্দ করা হয়ে গেলে বিনিয়োগ শুরু করার জন্য দরকার নিজের একাউন্ট তৈরি করে যাবতীয় প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস আপলোড করা এবং কেওয়াইসি প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করা।

কেওয়াইসি সম্পন্ন হওয়ার পরে সংশ্লিষ্ট ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ সাইটে যাবতীয় প্রয়োজনীয় নথি যাচাই করা হয়। তারপর ক্রিপ্টোকারেন্সিতে ট্রেডিং শুরু করা আর কোনো ব্যাপার নয়। তবে, একটা কথা মাথায় রাখা প্রয়োজন। সাধারণ স্টক মার্কেটের মতো ক্রিপ্টোতে আলাদা করে ওপেনিং আওয়ার বা ক্লোজিং আওয়ার থাকে না দিনের ২৪ ঘণ্টায় ক্রিপ্টোয় লেনদেন করা সম্ভব।

বিনিয়োগকারী চাইলে একটি ডিজিটাল ওয়ালেটে তৈরি করে সেখানে ক্রিপ্টো মুদ্রা সংরক্ষণ করতে পারে বা চাইলে তা অর্থে পরিণত করে একাউন্ট থেকে বের ও করে নিতে পারে। 

প্রথম দিকে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে পোর্টফোলিও বাড়ানোর আগে বুদ্ধিমানের কাজ হবে এক সময়ে কেবলমাত্র একটি ক্রিপ্টোকারেন্সিতেই ইনভেস্ট করা কারণ; ক্রিপ্টোর বাজার বেশ অস্থির। 

সর্বশেষে মনে রাখা প্রয়োজন ক্রিপ্টোকারেন্সিতে বিনিয়োগের আগে বিশেষজ্ঞদের মতামত নেওয়া যেমন প্রয়োজনীয় তেমনি গুরুত্বপূর্ণ ছোটখাটো বিনিয়োগের মাধ্যমে মার্কেটের খুঁটিনাটি নিজে যতটা সম্ভব বোঝার চেষ্টা করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.