মেয়েলি অসুখে দারুন কাজ করে। নটে শাকের অসাধারন ১৩ টি উপকারিতা

নিউজ ডেস্কঃ নটে শাক আমাদের পরিচিত হওয়ার পাশাপাশি এটি একটি সহজলভ্য শাক। এই শাকটি রান্না করে খাওয়া হয়ে থাকে।তবে আপনারা কি জানেন যে নটে শাক আমাদের শরীরের কি কি কাজে লাগে বা কতটা আমাদের শরীরে উপকার করে? তাহলে জেনে নিন নটে শাকের উপকারিতা সম্পর্কে।

১) নটে শাক বা কাটা নটের মূলে বা শিকড় পিষে জলে সেদ্ধ করে ক্কাথ তৈরি করে সেই ক্কাথের ২ চা চামচ তার সঙ্গে মধু ২ চামচ এবং ভাতের ফ্যান ৮ চা চামচ মিশিয়ে খেলে মেয়েদের সব রকমের প্রদর রোগ সারে।

২) আগুনে পোড়া ঘা বা ব্রণতে নটে শাকের রস লাগালে ঘা বা ব্রণ সারে।

৩) নটে শাকের পুলটিস তৈরি করে ফোঁড়ার ওপর বাঁধলে ফোঁড়া তাড়াতাড়ি পেকে ফেটে যায়। ফোলার ওপর নটে শাক বাটার প্রলেপ লাগালে ফোলা কমে।

৪) নটে শাকের রস গোরুর দুধে মিশিয়ে খেলে বিষ নেমে যায়। ১ চা চামচ নটে শাকের শিকড়ের চূর্ণ(গুড়ো) ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে দু বার করে চেটে খেলে শরীর থেকে ইদুরের বিষ নেমে যায়।

৫) নটে শাকের রসে চিনি মিশিয়ে খেলে বিছের কামড়ের বিষও নেমে যায়।

৬) যদি শরীর গরম হওয়ার দরুন বা যে কোনো কারনে রক্তের দোষ ঘটে এবং সেই কারনে চুলকানি হয় তাহলে নিয়মিত নটে শাক ভাজা খেলে উপকার পাওয়া যায়।

৭) গরমকালের সব অসুখ নিয়মিত নটে শাক ভাজা খেলে সারে।

৮) মেয়েলি অসুখেও নটে শাক খুব উপকারী।

৯) নটে শাক স্তন্যদুগ্ধবর্ধক।

১০) কুষ্ঠ রোগ, শরীর জ্বালা, লিভার ও পিত্তের অসুখেও নটে শাক উপকার দেয়।

১১) যারা অসুস্থ তাদেরও নটে শাক খাওয়ানো যেতে পারে- কারন নটে শাক খেলে কোনো অপকার হবে না।

১২) গরমকালে ও বর্ষাকালে প্রতিদিন নিয়ম করে ভাতের সঙ্গে নটে শাক ভাজা, চচ্চড়ি, ভাতে বা ঘণ্ট খেলে- অনেক রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।সব রকম বিষের ক্রিয়া নাশের পক্ষেই নটে শাক হল সবচেয়ে সুলভ, সস্তা ও সহজ অব্যর্থ ওষুধ।

১৩) নটে শাক অনেক রোগেরই সুলভ, সস্তা ও সহজ ও ঘরোয়া ওষুধ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.