রুটি এবং রসুনের পাশাপাশি যে জিনিস গুলি ফ্রিজে রাখা উচিৎ নয়

নিউজ ডেস্কঃ বর্তমান দিনে আমরা সমস্ত খাবারিই ফ্রিজে রাখি।কারন আমরা মনে করি যে ফ্রিজে রাখতে খাবার ভালো থাকে।কিন্তু এবার এই ধারনাটি পাল্টান কারন কিছু খাবার এবং সবজি আছে যেগুলি ফ্রিজে রাখতে ভালো থাকে আবার  এমন কিছু খাবার আছে যেগুলি   ফ্রিজে রাখা একদমই উচিৎ নয়।আর সেই সমস্ত জিনিসগুলি কি কি সেটা জেনে নিন।   

১. টমেটো-

কাঁচা টমেটো ফ্রিজের রাখা উচিৎ নয় কারন কাঁচা টমেটো স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রাখলে সেটি আরো সুস্বাদু এবং রসালো হয়।তাই কাঁচা টমেটোকে ফ্রিজে না রেখে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রাখুন।তবে টমেটো যদি পুরোপুরি পেকে যায় তাহলে আপনি টমেটো একটি প্লাস্টিক ব্যাগে ভরে ফ্রিজ রাখতে পাবেন।তবে ফ্রিজ থেকে বের করে সঙ্গে সঙ্গে রান্না করবেন না আধা ঘন্টা স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রেখে তারপর রান্নায় করবেন।

২. পেঁয়াজ

খোসাযুক্ত পেঁয়াজ ফ্রিজে রাখবেন না কারন খোসাযুক্ত পেঁয়াজ  বেঁচে থাকার জন্য আলো-বাতাসের প্রয়োজন।তাই যদি ওই খোসাযুক্ত পেঁয়াজকে ফ্রিজে রাখা হয় তাহলে তা অতিরিক্ত আর্দ্রতার কারণে পঁচে যেতে পারে।এই জন্য ফ্রিজে পেঁয়াজ রাখতে হলে খোসা ছাড়িয়ে রাখা উচিত। 

৩. বাদাম এবং শুকনো ফল

বাদাম এবং শুকনো ফলকে  ফ্রিজে রাখা উচিত নয় কারন এতে অতিরিক্ত ঠাণ্ডা তাপমাত্রায় স্বাদ ও গন্ধ নষ্ট হয়ে যায় এবং ফ্রিজে থাকা অন্যান্য গন্ধও এর মধ্যে ঢুকে যায়।তাই বাদাম এবং শুকনো ফলকে কোন বায়ুরোধী পাত্রে রেখে খোলা জায়গায় রাখায় ভালো।

৪. রুটি

এবার থেকে  রুটি থেকে গেলে ফ্রিজেই সংরক্ষণ করবেন না।কারন ফ্রিজে রুটি রাখলে রুটি শক্ত এবং রাবারের মতো হয়ে যেতে পারে।এছাড়াও ঠাণ্ডা ও আর্দ্র তাপমাত্রা রুটি আরো দ্রুত বাসি হয়ে যায়।তাই রুটি ফ্রিজে রাখা একদমই উচিত নয়। 

৫. রসুন

 রসুনকে সংরক্ষণ করতে হলে  শুকনো এবং শীতল জায়গায় করা উচিত ফ্রিজে নয়।কারন ফ্রিজে রসুন সংরক্ষণ করলে তার থেকে গেঁজ বের হতে শুরু করবে এবং তা রাবারের মতো হয়ে যেতে থাকবে।তাই  ফ্রিজে রসুন সংরক্ষণ করা উচিত নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.