পদ্ভনাভ স্বামী মন্দির থেকে তিরুপতি মন্দির। পর্যটকদের জন্য  ৫টি বিশেষ জায়গা ভারতবর্ষের

নিউজ ডেস্ক   –   পর্যটকরা শুধুমাত্র প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতেই পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে ভিড় জমায় না। এমন বেশ কিছু পর্যটক রয়েছেন যারা  দেব দেবীর মন্দিরে  পুজো দিতে ও তাদের দর্শন করতে বিদেশে ভিড় জমান। সেই সকল পুজারী মনোভাবাপন্ন পর্যটকদের জন্য  ৫টি বিশেষ জায়গার নাম উল্লেখ করা হয়েছে।  

১)  শ্রী পদ্ভনাভ স্বামী মন্দির –   কেরালার তিরুবনন্তপুর  শহরে অবস্থিত এই মন্দিরটি সারা বিশ্বের কাছে ধনী মন্দির হিসেবে পরিচিত।  কারণ একদা এক সময় মন্দিরের ভূগর্ভস্থ স্থান থেকে প্রচুর পরিমাণে প্রায় হাজার কোটি টাকা মূল্যের হীরে উদ্ধার হয়েছিল। এরপর থেকে মন্দিরের নাম চারিদিকের চাউর হতেই  পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভিড় জমাতে শুরু করে ভক্তরা। 

২) তিরুপতি মন্দির –   অন্ধ্রপ্রদেশে অবস্থিত পৃথিবীর বিখ্যাত এই মন্দিরটি।  পৌরাণিক গাঁথা অনুযায়ী ভগবান বালাজি বসবাস করতেন এই মন্দিরে। এমনকি তিনি ঈশ্বরের কোষাধক্ষ্য কুবেরকে   বিশাল ঋণ দিয়েছিলেন একসময়। সেই প্রথা অনুযায়ী যখনই ভক্তরে মন্দিরে আসে তারা বিশাল পরিমাণে নগদ ও মূল্যবান জিনিস দান করেন। তবে এখানে একটি বিশেষত্ব হলো অধিকাংশ ভক্তরা মনে করেন মন্দিরে যা প্রার্থনা করা হয় তার সব ইচ্ছে পূরণ হয়। সেক্ষেত্রে বছরের অধিকাংশ দিনই এখানে ভিড় জমায় দর্শনার্থীরা।  

৩) শিরডি সাই মন্দির –  গোটা দেশের তৃতীয় ধোনি মন্দিরের স্থান দখল করেছে শিরডি সাই বাবার মন্দির। এই ভগবান প্রথম জীবনে ফকির হিসাবে জীবনযাপন করে ও ভিক্ষাবৃত্তিতে খুব কষ্টের নিজের দৈনিক দিন অতিবাহিত করতেন। কিন্তু সকল দরিদ্রদের কাছে সবচেয়ে বড় বিচারক ছিলেন শ্রী সাই বাবা। সেক্ষেত্রে শিরডিতে অবস্থিত এই সাঁইবাবার মন্দির ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় তীর্থস্থান।  

৪) সিদ্ধিবিনায়ক মন্দির – গোটা দেশে শতাধিক সিদ্ধিবিনায়ক মন্দির থাকলেও ভারতের সবচেয়ে বিখ্যাত সিদ্ধিবিনায়ক মন্দির রয়েছে মুম্বাইয়ে। এই মন্দিরের সারাদিন ধর্মীয় অনুষ্ঠানের  মাধ্যমে হিন্দু ধর্মের অন্যতম দেবতা গণেশের পুজো করা হয়। এখানে বছরের প্রত্যেকটা দিন ভক্তদের নজর করার পাশাপাশি বিভিন্ন মূল্যবান জিনিস দান করে থাকে মন্দিরে।  

৫) স্বর্ণমন্দির – গোটা বিশ্বের কাছে অন্যতম আকর্ষণীয় ও সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য তীর্থস্থান হল পাঞ্জাবের অমৃতসরের স্বর্ণমন্দির।  এই মন্দিরের চূড়ার অংশটি সোনা ও রুপোর দিয়ে সাজানোর জন্য পর্যটকের আকর্ষণের  অন্যতম কেন্দ্র বিন্দু হল স্বর্ণমন্দির। এটি মূলত শিক ধর্মালম্বীদের ভগবান বাহে গুরের জন্য এটি নির্মাণ হলেও এখানে সর্ব ধর্মের ভক্তরাই মন্দির দর্শনে আসতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.