কোন রাজ্যে রাখা আছে কর্ণের কবজ এবং কুণ্ডল?

নিউজ ডেস্কঃ মহাভারতের কর্ণের বীরত্ব কথা আমরা সবাই জানি। আর এই বীরত্বের জন্যই কর্ণকে মহাভারতের একটি অন্যতম প্রধান চরিত্রে হিসাবে মানা হয়। আমরা সবাই জানি যে কর্ণ ছিলেন কুন্তি এবং সূর্যদেবের পুত্র। এবং কুন্তির বিবাহ পূর্বে সূর্যদেবের কাছে বরস্বরূপ সন্তানপ্রাপ্তি হয়েছিল। যার জন্যই কর্ণকে কুন্তি ত্যাগ করেছিলেন।তাই সূর্যদেব তার পুত্র কর্ণকে অজেয় করার জন্যে তার জন্মে সময় কবজ ও কুণ্ডল দান করেছিলেন।যা মহাভারতের যুদ্ধের আগে ইন্দ্রদেবকে দান করেছিলেন।তবে আপনারা কি জানেন যে এই কবজ ও কুণ্ডল আমাদের পৃথিবীতে রয়েছে? এবার জেনে নিন যে এই কবজ ও কুণ্ডল পৃথিবীর কোন জায়গায় আছে?

কুন্তির বিবাহ পূর্বে সূর্যদেবের কাছে বরস্বরূপ সন্তানপ্রাপ্তি হয়েছিল।যার জন্যই কর্ণকে কুন্তি ত্যাগ করেছিলেন।তাই সূর্যদেব তার পুত্র কর্ণকে অজেয় করার জন্যে তার জন্মে সময় কবজ ও কুণ্ডল দান করেছিলেন।।যার ফলে কর্ণকে হারান অসম্ভব ছিল।কারন কবজ ও কুণ্ডল তাকে যেকোনো অস্ত্রের থেকে রক্ষা করত।আর এই কবজ ও কুণ্ডল মহাভারতের যুদ্ধের আগে দেবরাজ ইন্দ্র এক সাধুর বেশে তার কাছ থেকে ওই কবজ ও কুণ্ডল দান স্বরূপ চেয়েছিলেন।কারন দেবরাজ ইন্দ্র জানতেন যে কর্ণ সকালে উঠে প্রথমে সূর্যদেবের পূজা করেন এবং তার পর যে যা দান চান তাই কর্ণ দান করেন।এই জন্যই সকালে সূর্য পূজার পর দেবরাজ ইন্দ্র যখন তার কাছ থেকে তার কবজ ও কুণ্ডল চেয়েছিলে তখন কর্ণ তা দান করে দিয়েছিলেন।দেবরাজ ইন্দ্র যেহেতু কর্ণের থেকে ছল করে তার কবজ ও কুণ্ডল নিয়েছিলেন তাই সেটি স্বর্গে নিয়ে যেতে পারেন নি।তাই তিনি পৃথিবী মধ্যে লুকিয়ে রেখেছিলেন।জানা যায় যে দেবরাজ ইন্দ্র ওই কবজ ও কুণ্ডল নাকি ওড়িশার কোণারক মন্দিরে লুকিয়ে রেখেছিলেন। কোনো এক সময় এই কবজ ও কুণ্ডল চন্দ্রদেব নিতে চেয়েছিলেন তবে সমুদ্রদেব সেটি নিতে দেন নি।তখন থেকেই এই কবজ ও কুণ্ডল ওই জায়গাতেই আছে।কিন্তু এই কবজ ও কুণ্ডল কণারক মন্দিরের কোথায় আছে সেটি এখনও পর্যন্ত জানা যায় নি।তাই কবজ ও কুণ্ডল কণারক মন্দিরের আছে নাকি নেই এই নিয়ে কোনো প্রমান পাওয়া যায় নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.