বাড়ির রান্নার গোলযোগের কারনেই বৃদ্ধি পাচ্ছে পেটের সমস্যা

নিউজ ডেস্ক  – বহুবার পেটের গোলযোগের সমস্যায় ভোগার পর ডায়েট চার্ট ব্যবহার করছেন। নিয়মিত ভাবে সকল খাবার খেলেও পুনরায় দেখা দিচ্ছে খাদ্য পাচনের সমস্যা।  তাহলে সর্ষের মধ্যেই লুকিয়ে রয়েছে ভূত! অর্থাৎ রান্না করার পদ্ধতি হচ্ছে ভুল রাস্তায়। ভালো করে রান্না করলে গোলযোগে সমস্যা দেখা দিতে পারে না এমনটাই দাবি বিশেষজ্ঞদের।  

নতুন যুগের একাধিক নতুন পদ্ধতিতে রান্না করা হয়। মুখের স্বাদ আনতে বহু রকমের মালমশলা ব্যবহার  করা হয়। কিন্তু মুখের স্বাদ দিলেও পেটের ক্ষেত্রে এগুলো সম্পূর্ণ মারাত্মক। তারপরে যদি রান্না করার ক্ষেত্রে ত্রুটি থেকে যায় তাহলে তো পেটের গন্ডগোল থেকে আপনাকে কেউ বাঁচাতে পারবে না। সেই কারণেই আয় কার যোগে মা ঠাকুর মারা সবজি রান্না করার আগে যেমন ভাল করে ধুয়ে নিতো ঠিক সেভাবে ডাল রান্না করার আগে বেশ কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখতে। কারণ খাদ্যতালিকায় ডাল থাকলে সেটি হজম হতে সময় নেয়। তাই বহু আগে থেকে ডাল ভিজিয়ে রাখলে কিছুটা হলেও পেটের গন্ডগোল এড়ানো যায়। না হলে একাধিক দল যেমন মুগ, মুসুরির ডাল, অড়হড়ের ডাল সহ আরও অনেক ধরনের ডাল বাজারে কিনতে পাওয়া যায়।  সেই সকল ডাল ভিজিয়ে রান্না করতেন আগেকার মহিলারা। সেই রন্নার অনুসরণ করেই আজকের যুগে অনেকেও সেই  রান্নাতে  পটু হস্ত অর্জন করেছেন।

হজমের বিষয়ে পুষ্টিবিদ সোনালী সভারওয়াল জানিয়েছেন, হজমের সমস্যা এড়াতে শুকনো মটরশুঁটি, রাজমা হোক কিংবা মুগ সহ একাধিক ডাল ভিজিয়ে রান্না করা উচিত।  মটরের ডালের প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে যা খাবার পর পেট ফুলে ফেঁপে ওঠে।  কিন্তু ডাল ভিজিয়ে রান্না করলে এবং রান্না করার পদ্ধতি সহজ করলে গ্যাসের সমস্যা কিংবা বদ হজম হওয়ার হাত থেকে রেহাই পাওয়া যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.