পৃথিবীর যে দেশটিতে প্রতিবছর এক জনকে জ্যান্ত কবর দেওয়া হয়

নিউজ ডেস্ক – পৃথিবী একটি বৈচিত্র্যময় স্থান। যার কারণে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে বিভিন্ন রকম নিয়ম পালন করা হয়। কিন্তু এমন কিছু আজগুবি নিয়ম রয়েছে যেগুলো শুনলে মানুষের প্রাণের জল শুকিয়ে যাবে। এমন একটি দেশ রয়েছে যেখানে মানুষকে জীবন্ত কবর দেওয়া একটি উৎসব বলে পালন করা হয়। প্রতিবছর কোন না কোন না কোন ব্যক্তিকে  জীবন্ত অবস্থায় কফিনে বন্দি করে জীবন্ত দাফন করা হয়। এমন অদ্ভুত ঘটনা ঘটে থাকে কিউবার রাজধানী হাভানা থেকে ১২ মাইল দূরে সান্তিয়াগো দে লাস ভেগাস নামক গ্রামে।

গ্রামের দীর্ঘদিনের  রীতি অনুযায়ী ‘বারিয়াল অব প্যাচেন্দো’নামক এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রতিবছর এক জনকে জ্যান্ত কফিনে বন্দী করে কবর দেওয়া হয়।  এই অনুষ্ঠানের প্রথা অনুযায়ী বিভিন্ন আচার অনুষ্ঠান মেনে একজন ব্যক্তিকে জ্যান্ত অবস্থা কফিনের মধ্যে শুইয়ে দেয়া হয়।   এরপরই সেই বন্দি কফিনকে ৪ জন ব্যক্তি কাঁধে নিয়ে রীতিমতো একটি শবদেহ  মিছিল করে। যেখানে একদল বৃদ্ধ-বৃদ্ধারা ক্রন্দনরত অবস্থায় থাকে। তাদের পেছনে যে সকল ব্যক্তিরা ভিড় জমায় তাদের চিত্রিত একটু অন্যরকম। তারা সকলেই নেশাগ্রস্ত অবস্থায় টলমান জিবে পরিণত হয়। এরা এতটাই নেশাগ্রস্ত অবস্থায় মত্ত থাকে যে  কোন দিক বিদিক হুশ থাকে না এদের। ঠিক এই অনুষ্ঠানটি একটি সত্যিকারের খ্রিস্টানদের মৃতদেহ শোভাযাত্রার মতো লাগবে। তবে এখানেই সব একই থাকলে ব্যতিক্রম দেখা যায় শুধুমাত্র শবদেহের ক্ষেত্রে। কারণ আসল মৃত্যু মিছিলে কফিন বন্দি থাকে এক শবদেহ, তবে এই মিছিলে কফিন বন্দি থাকে একজন জ্যান্ত ও জীবিত মানুষ। বিষয়টি অস্বাভাবিক যেমন তেমনই ভয়ানক। দীর্ঘদিন ধরে এই প্রথা চলে আসায় তার অন্যথা করে না কেউ। বর্তমানেও এরকম এক ভয়াবহ প্রথা চলার রীতি রয়েছে কিউবারের প্রত্যন্ত গ্রামে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.