নোংরা স্তুপে পরিণত হয়েছে দেশটি। অর্থনৈতিক হাল ভয়াবহ। জিম্বাবুয়ের অবাক করার মতো ১১ টি বিষয়

নিউজ ডেস্ক- একটা সময় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দেখা মিললেও বর্তমান সেভাবে দেখা যায়না। জিম্বাবুয়ে আফ্রিকার দক্ষিণ পশ্চিম অংশে অবস্থিত। জিম্বাবুয়ের রাজধানী হল হারারে।দেশের মোট জনসংখ্যার বেশিরভাগ মানুষই এই শহরটি কে বসবাস করে। জিম্বাবুয়ের সরকারি ভাষা হল ইংরেজি। এছাড়াও দেশটিতে স্বীকৃত দুটি আঞ্চলিক ভাষা রয়েছে শোনা, ন্ডেবেলে। 

জিম্বাবুয়ে দেশ সম্পর্কে কিছু রোমাঞ্চকর তথ্য হলো-

1. পৃথিবীর প্রাকৃতিক সপ্তাশ্চর্যের মধ্যে অন্যতম ভিক্টোরিয়া জলপ্রপাত জিম্বাবুয়ে দেশে অবস্থিত। এটি জিম্বাবুয়ের উত্তর পশ্চিম অংশে অবস্থিত। এর উচ্চতা প্রায় 108 মিটার। চওড়া প্রায় 1703 মিটার। অবাক করা বিষয় হলো প্রতি সেকেন্ডে 935 ঘনমিটার জল পতিত হয় এই জলপ্রপাত থেকে। 

2. জিম্বাবুয়ের দেশের অর্থনৈতিক হাল ভিশন ভয়াবহ। দেশটির অর্থনীতির হাল এতটাই করুন যে 35 লাখ জিম্বাবুয়ে ডলার দিয়ে মিলে মাত্র 1 মার্কিন ডলার।

3. দক্ষিণ আফ্রিকা ও রাশিয়ার পরে পৃথিবীর তৃতীয় সবথেকে বেশি প্লাটিনাম উৎপাদন হয় জিম্বাবুয়ের দেশে। 

4. এই দেশটির প্রধান ধর্ম হল খ্রিস্টান। দেশের প্রায় 84 শতাংশ মানুষ খ্রিস্টান। বাকিদের মধ্যে 10 শতাংশ মানুষ কোন ধর্ম বিশ্বাস করেন না। 5 শতাংশ মানুষ স্থানীয় কিছু ধর্মে বিশ্বাসী এবং 1 শতাংশ মানুষ ইসলাম।

5. জিম্বাবুয়ের রাজধানী হারারে বর্তমানে একটি নোংরা স্তুপে পরিণত হয়েছে। এখানকার রাস্তাগুলির অবস্থাও করুন। বর্তমানে বসবাসের অযোগ্য শহর গুলির তালিকা হারারের স্থান সপ্তম। 

6. জিম্বাবুয়ে দেশ বড় পেটওয়ালা ব্যক্তিকে ধনি বলে মনে করা হয়। ভুড়ি পেট দেখে বোঝা যায় যে সেই ব্যক্তি আর্থিকভাবে স্বচ্ছল। এবং সে নিয়মিত মাংস খাওয়ার সামর্থ্য রাখে। 

7. জিম্বাবুয়ে একটি তরুণ জনসংখ্যার দেশ দেশটির অর্ধেকেরও বেশি মানুষের গড় বয়স 21 এর ও কম। 

8. এয়ার জিম্বাবুয়ে দেশের অন্যতম এয়ারলাইন্স কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হল এই প্লেন গুলিতে কোন সিটবেল্ট থাকে না। যাত্রীদের নিজস্ব প্যান্টের বেল্ট দিয়ে সিটবেল্ট হিসেবে ব্যবহার করতে হয়। 

9. আফ্রিকার অন্য সকল দেশগুলোর মতো এই দৃশ্য এইচআইভি আক্রান্তের সংখ্যা প্রচুর। দেশের প্রায় 14 লাখ মানুষ AIDS রোগে আক্রান্ত। 

10. আফ্রিকার কয়েকটি দেশের মধ্যে জিম্বাবুয়ে একটি যেখানে পাঁচটি বড় সিংহ, মহিষ, গন্ডার, চিতাবাঘ ও হাতি প্রাণী দেখতে পাওয়া যায়। দেশটিতে পাঁচটি ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট রয়েছে। 

11. জিম্বাবুয়ের দেশের মানুষের গড় আয়ু অনেক কম ছেলেদের ক্ষেত্রে 58.7 বছর এবং মেয়েদের ক্ষেত্রে 57.3 বছর। মানুষের আয়ু একটু কম এর পেছনে কারণ হিসেবে দারিদ্রতা মনে করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.