চুল পড়া রোধ করে। মাছ খাওয়ার ৯ টি অসধারন উপকারিতা

ওয়েব ডেস্কঃ মাছে ভাতে বাঙালি। অর্থাৎ বাঙালি মাছ খাবেনা এটা ভাবাও যেন দুষ্কর। মাছের এতো পুষ্টি গুন আছে যা চিন্তা করাও যায়না। মাছের ভেতরে থাকে “ওমেগা থ্রি” যা মস্তিস্কের খাদ্য নামে পরিচিত। অ্যামেরিকায় এক রিপোর্টে দেখা গেছে যে ৬০ বছরের বয়স বেশি মহিলারা এই ওমেগা থ্রি খেলে তাদের পেশি শক্তি বৃদ্ধি পায়।

মাছের ২০ শতাংশ আমিষ। এতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন। খনিজ লবন ছাড়াও খনিজ তেল, আয়রন, ক্যালশিয়াম এবং ফসফরাস পাওয়া যায়।

মাছ হার্ট ভালো রাখতে সাহায্য করেঃ অ্যামেরিকার এক রিপোর্টে দেখা গেছে যে যারা সপ্তাহে একদিন করে নিয়মিত মাছে খান তাদের হার্ট অ্যাটাকের সম্ভনা যারা মাছ খাননা তাদের থেকে ৫০ শতাংশ কম। সপ্তাহে দুবার মাছে খেলে হার্ট অ্যাটাকের কারনে মৃত্যুর ঝুঁকি ৩৬ শতাংশ কমে যায়।

উচ্চ রক্তচাপ কমায়ঃ মাছের তেলে থাকা ওমেগা থ্রি নামক অসম্পৃক্ত ফ্যাটি অ্যাসিড রক্তের ক্ষতিকারক কোলেস্টেরল LDL বা VLDL কমায় এবং HDL এর পরিমাণ বারিয়ে দেয় যার ফলে হার্টের রক্তনালীতে চর্বি জমতে পারেনা। ফলে রক্ত প্রসারণের পথ পরিস্কার থাকে। উচ্চ রক্তচাপ কমানোর পাশাপাশি হার্ট অ্যাটাকের সম্ভবনা কমে। পাশাপাশি ওমেগা থ্রি অণুচক্রিকাকে জমাট বাঁধতে দেয়না।

চুল পড়া রোধ করেঃ চুল গঠনের মূল উপাদান হল প্রোটিন। মাছে প্রচুর পরিমানে আমিশ জাতীয় প্রোটিন থাকায় তা সুবিধা হয়। মাছে আমিশ জাতীয় প্রোটিনের এক বিরাট উৎস। মাংসে রয়েছে প্রচুর এই ধরনের প্রোটিন তবে মাংসে রয়েছে কিছু ক্ষতিকারক দিকও, যা মাছে নেই।

ত্বক ভালো রাখেঃ মাছের ভেতরে থাকা ওমেগা থ্রি ত্বকের ভেতরে থাকা কোষ গঠন করে। এবং ত্বককে সানবার্ন থেকে বাচায়। মাছের ফ্যাট ত্বকের জন্য খুব ভালো, কারন এই ফ্যাট ত্বকের সৌন্দর্য বাড়ায়। তবে বেশি ভাঁজা মাছ খেলে ত্বকের এই গুন নষ্ট হয়ে যায়।

চোখ ভালো রাখতেঃ মাছে থাকা ওমেগা থ্রি এবং ফ্যাটি অ্যাসিড চোখের ড্রাই আই সিনড্রোম রোগে এ বেশ উপকারি। প্রতিদিন মাছ খাওয়া বেশ ভালো। প্রতিদিন তাই না হলেও সপ্তাহে অন্তত দুদিন খেলে ভালো হয়।

মাছ বাচ্চাদের ব্রেন উন্নত করেঃ মাছের তেলে থাকা ডকসাঁ হিক্সনিক অ্যাসিড এবং এলকোষা পেলটাএনইক অ্যাসিড মগজের বিকাশ ঘটায়।

শরীর এবং মস্তিস্কের কর্মক্ষমতা বাড়ায়ঃ ভিটামিন ডি এবং সামুদ্রিক মাছে থাকা ওমেগা থ্রি একত্রে মিলে মস্তিস্কের সেরোটোনিনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। এই সেরোটোনিন দেহের কর্মক্ষমতা এবং মস্তিস্কের কর্মকাণ্ড বাড়াতে সাহায্য করে।

কিডনি ভালো রাখেঃ মাছের ভেতরে থাকা ওমেগা থ্রি, যা কিডনি ভালো রাখতে এক গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। দৈনিক প্রোটিনের জন্য মাংসের থেকে মাছ ভালো কারন মাছে থাকা ওমেগা থ্রি কিডনি ভালো রাখতে এক গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে।

ক্যানসার প্রতিরোধ করেঃ সুইডেনের এক বিশেষজ্ঞদের মতে মাছ খাওয়া মানুষদের মাছ না খাওয়া মানুষদের থেকে ৩ গুন কম ক্যানসার হওয়ার সম্ভবনা থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.