বছরে কমপক্ষে নিয়ম করে দুবার ডেন্টাল স্কেলিং করুন। দাঁত ভালো রাখতে যে নিয়ম গুলি মেনে চলবেন

নিউজ ডেস্কঃ দাঁত। এমনই এক জিনিস যা হয়ত টাকা দিয়েও পুরোপুরি ঠিক করা সম্ভব নয় কিছু সময়। কথায় আছে “ দাঁত থাকতে দাঁতের মর্ম বুঝলেনা”। অর্থাৎ বুঝতেই পারছেন যে দাঁত কতোটা মূল্যবান। আর সেই কারনে দাঁতের যত্ন নেওয়াটা ভীষণ পরিমাণে দরকার। অনেক সময় দাঁতের ফাঁকে কালো দাগ সুন্দর চেহারা নষ্ট করে দেয়। আর সেই কারনে অনেকেই এই কালো দাগের জন্য মন প্রান খুলে হাঁসতেও পারেন না। তবে দাঁতের ফাঁকে এই কালো দাগ একাধিক কারনে হতে পারে। সবচেয়ে প্রধান কারণ দন্তমল। খাওয়ার পর বিভিন্ন খাদ্যকণা দাঁতের ফাঁকে বা মাড়িতে থেকে যায় অনেক সময়। আর তা দিনের পর দিন আটকে থাকার কারণে দাঁতের ওপর শক্ত আবরণ হয়ে যায় যা দন্তমলে পরিণত হয়। পাশাপাশি ধূমপান, জর্দা, পান ও তামাক সেবনের কারনেও দাঁতে দাগ পড়তে পারে।

দিনে কমপক্ষে দুবার বেশ খানিকটা সময় ধরে দাঁত ব্রাশ করা অভ্যাস করুন।

দন্তমল যে কেবল দেখতে খারাপ হয় তা কিন্তু নয় পাশাপাশি দাঁতের ভেতরে জন্ম নেয় অসংখ্য জীবাণু। আর এই জীবাণুই মানব শরীরের রক্তে মিশে নানারকম রোগ সৃষ্টি করে। শুধু তাই নয় গর্ভস্থ শিশুর ওপর ও এর প্রভাব পড়তে পারে। এ ছাড়া মুখে দুর্গন্ধ এবং নানারকম সমস্যা তৈরি করতে থাকে। তাই দাঁত সুন্দর এবং সাদা রাখতে বেশ কিছু নিয়ম মেনে চলা উচিৎ।

দাঁত ব্রাশ করার আগে ডেন্টাল ফ্লস বা সুতো দিয়ে দাঁতের ফাঁক ফোঁকর গুলি পরিষ্কার করার চেষ্টা করুন, এর ফলে জীবাণুর হাত থেকে রক্ষা পাবেন আপনি।

বছরে কমপক্ষে নিয়ম করে দুইবার দন্তমল দূর করার জন্য ডেন্টাল স্কেলিং করুন।

নিয়ম করে রোজ কোনো একটি শক্ত ফল যেমন পেয়ারা, আমড়া, আপেল ইত্যাদি দাঁত দিয়ে কামড়ে খাওয়ার চেষ্টা করুন। গাজর, শসা, টমেটো, লেবুর মতো তাজা শাকসবজি খাওয়া অভ্যাস করতে পারেন এর ফলে এইসকল শাঁকসবজি এবং ফলমূল দাঁত ভালো রাখতে সাহায্য করে।

প্রতিদিন রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে নিয়ম করে ভালো কোম্পানীর মাউথওয়াশ দিয়ে মুখ পরিষ্কার করার চেষ্টা করুন৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.