ব্রণের দাগ সম্পূর্ণভাবে নিরাময় করতে নারকেল তেল, অ্যালোভেরা জেলের ব্যবহার

আমাদের ত্বকের মূল সমস্যা গুলির মধ্যে ব্রণ অন্যতম। ত্বকে অতিরিক্ত তেল ধুলো ময়লা জমে সৃষ্টি হওয়া এই ব্রণ মুখের সৌন্দর্যে যেমন বাদ সাধে তেমনি কিছু কিছু ব্রন বেশ ব্যথার সৃষ্টি করে। অনেক সময় ব্রণ ঠিক হলেও থেকে যায় ব্রণের দাগ।

তবে চিন্তার কোন কারণ নেই। রাসায়নিক প্রোডাক্ট ব্যবহার না করেই ব্রণের দাগ সম্পূর্ণভাবে নিরাময় করা সম্ভব বেশ কিছু প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করে। আসুন আজ জেনে নিই উপাদানগুলির কথা।

১)কমলালেবুর খোসা

দাগহীন উজ্জ্বল ত্বকের জন্য কমলালেবুর খোসা খুবই উপকারি ।ব্রণের দাগ থেকে সম্পূর্ণভাবে রেহাই পেতে হলে এবার থেকে কমলালেবু খাওয়া হলে এর খোসাটা ফেলবেন না। খোসা গুলিকে রোদে ভালো করে শুকিয়ে গুঁড়ো করে নিন ।এরপর সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন একটি পাত্রে কিছুটা মধু,কমলালেবুর খোসা গুঁড়ো একসাথে ভালো করে মিশিয়ে ফেসপ্যাক তৈরি করে গোটা মুখে লাগিয়ে রাখুন ।এরপর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেললে মিলবে উপকার ।পরপর কয়েক সপ্তাহ এটি ব্যবহার করলে দেখবেন ব্রণের দাগ দূর হয়েছে এবং ত্বক ও  হয়ে উঠেছে উজ্জ্বল ।

২)নারকেল তেল

নারকেল তেল আমাদের প্রত্যেকের বাড়িতেই অল্প পরিমাণে হলেও থাকে ।চুলের যত্নে এই তেলের গুরুত্ব অপরিসীম ।তবে নারকেল তেল যে কেবল চুলেরই যত্ন নেয় তাই নয় ত্বকের যত্নেও নারকেল তেলের জুড়ি মেলা ভার ।বিশেষত ব্রণের দাগ তুলতে এটি খুবই ভালো কাজ দেয় । প্রত্যেকদিন রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে এক চামচ নারকেল তেল হাতের তালুতে ঘষে হালকা গরম করে নিন এরপর ব্রণের দাগের ওপর লাগিয়ে রেখে দিন ।পর পর কয়েক দিন এটি ব্যবহার করলে দেখবেন ব্রণের দাগ একেবারে নির্মূল হয়ে গেছে ।তবে অয়েলি স্কিন থাকলে নারকেল তেল ব্যবহার না করাই উচিত ।

৩)টি ট্রি অয়েল

অয়েলি স্কিনে ব্রণের সমস্যা দূর করতে টি ট্রি অয়েল এর থেকে ভালো আর কিছু হতে পারে না ।এটি শুধুমাত্র যে ব্রণের দাগে কমায় তাই নয় সেই সাথে ব্রণের লাল ভাব, ব্যথা প্রভৃতি কমাতেও সাহায্য করে ।ব্রন ও ব্রনের দাগ থেকে চিরকালের মতো মুক্তি পেতে প্রতিদিনের স্কিন কেয়ার রুটিনে টি ট্রি অয়েল যোগ করুন ।প্রতিদিন দুই থেকে তিন ফোঁটা টি ট্রি অয়েল আপনার পছন্দমত ক্রিম বা অলিভ অয়েল এর সাথে মিশিয়ে দাগের ওপর লাগান ।নিয়মিত ব্যবহারে দেখবেন ব্রণের হাত থেকে রেহাই পেয়েছেন সম্পূর্ণভাবে ।তবে টি ট্রি অয়েলে অনেকের অ্যালার্জি থাকতে পারে তাই গোটা মুখে টি ট্রি অয়েল ব্যবহার করার আগে ভালো করে টেস্ট করে নিতে ভুলবেন না অবশ্যই ।

৪)অ্যালোভেরা জেল

প্রাচীনকাল থেকেই অ্যালোভেরার ব্যবহার হয়ে আসছে বহুল পরিমাণে। নিয়মিত এলোভেরা জেলের ব্যবহারে ত্বক হয়ে ওঠে সুন্দর ও মসৃণ। সেই সঙ্গে যে কোনো রকমের ক্ষত ও খুব তাড়াতাড়ি সারিয়ে ফেলতে পারে অ্যালোভেরা ।আর ব্রণের দাগও এর ব্যতিক্রম নয়।প্রত্যেকদিন এক চামচ এলোভেরা অল্প জলের সাথে মিশিয়ে ব্রণের ওপর লাগালে মাত্র কয়েক দিনের ব্যবহারেই ত্বকে আসবে পরিবর্তন ।

৫)হলুদ

হলুদ তার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি গুণের জন্য অত্যন্ত পরিচিত। ত্বকের যেকোনো রকম সংক্রমণ, ক্ষত প্রভৃতি কমাতে সাহায্য করে হলুদ।নিয়মিত হলুদের ব্যবহার ত্বকে উজ্জলতা আনে ও ত্বকের যেকোনো দাগ কে করে দূর ।প্রত্যেকদিন এক চা-চামচ হলুদ গুঁড়া, অল্প একটু লেবুর রস মিশিয়ে তৈরি করে নিন একটি মিশ্রণ। এটি ব্রণের দাগের ওপর লাগিয়ে রাখুন 15 মিনিট ।নিয়মিত একদিন অন্তর অন্তর এটি ত্বকে ব্যবহার করলে ব্রণের দাগ সম্পূর্ণভাবে নির্মূল হয়ে যাবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.