কোন মেয়ের ঘরে ঢুকে তাদের উপর ধর্ষণ চালাতে পারে পুরুষরা। কিন্তু যদি সূর্যোদয়ের পরেও সেই পুরুষ মহিলার সঙ্গে থাকে তাহলে

নিউজ ডেস্ক –  পৃথিবীর বিভিন্ন কোনায় বিভিন্ন রকমের রেওয়াজ রয়েছে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে। এমন একটি রেওয়াজ রয়েছে যার  সম্পর্কে সম্প্রতি অবগত হয়েছে সাধারণ মানুষ এবং যেটি শুনলে আঁতকে উঠবে সকলেই। ‌ এমন একটি গ্রাম রয়েছে পৃথিবীর বুকে যেখানে ধর্ষণকে  উৎসব বলে পালন করা হয়। সেই জায়গাটির নাম ভুটান। সম্প্রতি ভুটানের একটি  বোমেনা নামক রীতি  রয়েছে যেখানে গভীর রাতে মেয়েদের ঘরে ঢুকে ধর্ষণ করার রেওয়াজ রয়েছে পুরুষদের। হ্যাঁ কথাটি শুনতে আজব লাগলেও বাস্তব। 

ভুটান নামটি শুনলেই প্রকৃতির সৌন্দর্যের চিত্র ভেসে ওঠে চোখের সামনে। মনোরম পরিবেশে গাছপালা পাহাড়-পর্বত দিয়ে সমাদৃত এক স্বর্গীয় পরিবেশ। তবে এই স্বর্গীয় পরিবেশের আড়ালে লুকিয়ে রয়েছে এক নরক। জানা যায় ভুটানে বোমেনা নামক একটি রেওয়াজ রয়েছে যেখানে প্রত্যেকদিন রাতে যে কোন মেয়ের ঘরে ঢুকে তাদের উপর ধর্ষণ চালাতে পারে পুরুষরা। এই রীতির  কারণে গর্ভবতী হয়ে পড়েছেন বহু মহিলা। কিন্তু রেওয়াজ অনুযায়ী যদি কোন পুরুষ কোন মহিলার সঙ্গে রাত কাটানোর পর সূর্যোদয়ের আগেই তাঁর ঘর থেকে বেরিয়ে যায় তাহলে কোন দোষ হয় না সেই পুরুষটির। এই সঙ্গমের কারণে যদি সেই মহিলা গর্ভবতী হয়ে যান তাহলে সে সারাজীবন সিঙ্গেল মাদার হিসাবে জীবন যাপন করে। এই রীতিকে সমর্থন করে মেয়ের পরিবারও। কিন্তু যদি সূর্যোদয়ের পরেও সেই পুরুষ মহিলার সঙ্গে থাকে তাহলে সমস্ত রীতিনীতি মেনে সমাজের উচ্চ আধিকারিকদের উপস্থিতিতে সেই যুগলদের বিয়ে দেওয়া হয়। বর্তমানে দাঁড়িয়েও এমন রীতির প্রচলন রয়েছে ভুটানে। যার কারনে আজও প্রত্যেকদিন রাতে ভয় নিয়ে ঘুমাতে যায় সকল নারীরা। কিন্তু হাজার ভয় ও হাজার অনিচ্ছা থাকা সত্ত্বেও কোনদিনও সমাজের রীতি বিরোধিতা  করতে পারেনি কেউই। যার কারণে আজ এক নরকীয় জীবন যাপন করছে বহু মেয়ে ও মহিলারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.