ক্যানসার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। তেজপাতার অসাধারন ৫ টি কাজ

নিউজ ডেস্কঃ তেজপাতা আমরা রান্নায় দেওয়ার পর ফেলে দিন অর্থাৎ রান্নায় ব্যবহার করা হয়ে ফেলে তেজপাতার কাজ শেষ হয়ে যায়।কিন্তু এই ধারনাটি পুরোপুরি ঠিক নয় কারন তেজপাতা রান্নার পর ফেলে দিলেও তার কার্যকারিতা  কিন্তু ওই রান্নার মধ্যেই থেকে যায়।হ্যাঁ ঠিকই শুনছেন তেজপাতা রান্নায় সুগন্ধ বাড়ানো ছাড়াও আরও অনেক গুণাবলি এর মধ্যে আছে যা আমাদের স্বাস্থ্যকে সুস্থ রাখতে বিশেষভাবে সাহায্য করে।তাই রান্নায় তেজপাতার ব্যবহার করা কতটা আমাদের শরীরে পক্ষে উপকারি তা জেনে নিন।   

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে : যাদের ডায়াবেটিস আছে তাদের পক্ষে নিয়মিত তেজপাতাযুক্ত খাবার খাওয়া খুবই উপকারি।কারন তেজপাতা শরীরের ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখতে বিশেষভাবে কার্যকরী।

ক্যানসার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে: তেজপাতায়ে উপস্থিত বিভিন্ন ধরনের উপাদান যেমন- পার্থেনো লিড, লিনালোল, ক্যাথেচিনস, ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস,  অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ইত্যাদি উপাদান যা ক্যানসার সৃষ্টিকারী ফ্রি রেডিক্যালকে প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

মানসিক চাপ ও উদ্বেগ নিয়ন্ত্রণে : বর্তমান দিনে বিভিন্ন কারনে মানুষ প্রচুর পরিমাণে মানসিক চাপ ভোগে যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকারক।তাই তাদের  মানসিক চাপ পেতে হলে  তেজপাতাযুক্ত খাবার খান।কারন তেজপাতাতে লিনালোল নামে  একটি উপাদান থাকে, যা শরীরে স্ট্রেস হরমোনের পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে।তেজপাতাযুক্ত খাবার খান এতে মানসিক চাপে নিয়ন্ত্রণ রাখতে সহায়তা করবে।

হৃদযন্ত্র ভালো রাখে : তেজপাতাতে উপস্থিত রুটিন ও ক্যাফেয়িক এই দুই ধরনের এসিড যা কার্ডিওভাস্কুলার সিস্টেম থেকে ক্ষতিকর কোলেস্টেরল থেকে মুক্তি দিতে সাহায্য করে এবং হৃদপিন্ডকে সতেজ রাখতেও সাহায্য করে।

আথ্রাইটিসের ব্যথা কমাতে সহায়ক : তেজপাতা আথ্রাইটিসের ব্যথা কমাতে সহায়ক।তাই যাদের আথ্রাইটিসের সমস্যা আছে তাদের নিয়মিত তেজপাতা খাওয়া উপকারি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.