অর্থের জন্য বুকের দুধ বিক্রি করে প্রচুর অর্থের মালিক এই মহিলা

নিউজ ডেস্ক – মায়ের দুধে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা শিশুদের পক্ষে খুবই উপকারী। যার কারণে প্রত্যেকটি চিকিৎসকেরা পরামর্শ দেন যাতে দীর্ঘ সময় ধরে শিশুদের বুকের দুধ পান করানো হয়। কিন্তু বর্তমানে দেখা গিয়েছিল শিশুরাই নয় দুধ পান করতে ইচ্ছুক প্রাপ্তবয়স্ক বডিবিল্ডার পুরুষেরাও। যার কারণে নিজের বুকের দুধ বিক্রি করে কোটিপতি হয়েছেন রাফায়েলা ল্যাম্পরুউ নামের ২৪ বছর বয়সী সাইপ্রাসের এক বাসিন্দা। যদিও প্রথমে নিজের বুকের দুধ নিয়ে কোনো রকম ব্যবসা করার ইচ্ছুক ছিলেন না তিনি। পরবর্তীতে এমন কিছু ঘটনা ঘটে যার জন্য আজ নিজের বুকের দুধ বিক্রি করে কোটিপতি হয়েছেন।

রাফায়েলা ল্যাম্পরুউ জানান, যখন তিনি গর্ভবতী হওয়ার পর এক শিশু সন্তানের জন্ম দেন তখন ৭ মাস বয়সে বরাবরই বুকের দুধ পান করাতেন তিনি। তবে একদিন হঠাৎই দেখতে পান শিশুকে বুকের দুধ পান করানোর পরেও যথেষ্ট পরিমাণে দুধ নষ্ট হচ্ছে। তাই যেসব মহিলারা তাদের সন্তানদের দুধ পান করাতে সক্ষম তাদের এই বুকের দুধ বিনা পয়সায় দান করতেন তিনি। তবে এই ক্রিয়াক্রম চলাকালীন কিছু ব্যক্তি তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এই দুধ বিক্রি করার পরামর্শ দেন। আর তাতেই রাজি হয়ে যায় রাফায়েলা। এরপরই স্থানীয়দের কাছে মেয়েদের দুধ বিক্রি করার পর তার চাহিদা ও ক্রেতা দেখে পরবর্তীতে ই-কমার্স সাইট অর্থাৎ সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে নিজের বুকের দুধ বিক্রি করতেন তিনি। যার প্রতি লিটারের দাম ছিল ৮ ইউরো অর্থাৎ ভারতীয় কারেন্সিতে মূল্য হবে ৮০ টাকা।  তবে এই সকল দুধ কেনার ক্রেতারা ছিল মূলত ব্যায়ামাগারের সদস্য বা বডি বিল্ডিংয়রত পুরুষ। 

পরবর্তীতে এই সকল পুরুষদের কাছে গর্ভবতী মহিলা বুকের দুধ পান করার কারণ জানতে চাইলে তারা বলে, বুকের দুধে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা একজন মানুষকে শক্তিশালী করে। এই শক্তি পাওয়ার জন্য বহু বডিবিল্ডাররা বিভিন্ন রকমের প্রোটিনজাতীয় বা এনার্জি জাতীয় খাদ্য কেনেন। যদি এই সকল খাদ্যের পরিবর্তে  বুকের দুধ পান করা যায় তাহলে বেশি লাভবান হবেন তারা। কার্যত বডিবিল্ডার যুবকদের চাহিদা মেটাতে নিজের ব্যবসা প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি করে আজ কোটিপতি হয়ে দাঁড়িয়েছেন রাফায়েলা। তবে খালি দুধ বিক্রি করায় নয় যাতে নিজের শারীরিক গঠন ও দুধের গুণগত মান বজায় থাকে তার জন্য প্রতিনিয়ত  নিজের শরীরের চেকআপ করাতে হয় রাফায়েলাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.