শবাসনের পাশাপাশি যে জিনিস গুলি রাগ নিয়ন্ত্রণে করতে সাহায্য করে

নিউজ ডেস্কঃ রাগ। এমন এক জিনিস যা সব কিছুকে ধ্বংস করে দিতে পারে। রাগ হল চণ্ডালের সমান। অর্থাৎ রাগে পৃথিবীর সবকিছু ওলটপালট হয়ে যেতে পারে। পাশাপাশি রাগের কারনে শরীরে রোগের বাসাও বাঁধতে পারে। কারন রাগ হলেই সবার আগে মানুষ চিৎকার চেঁচামেচি করতে শুরু করে, আর সেই কারনে একাধিক অসুবিধা শুরু হয়। তবে যোগাসনের অভ্যেস করতে পারেন৷ কারন যোগ রাগ কমাতে পারে। যোগাতে বেশ কিছু ধরনের আসন আছে যা করলে একজন ব্যাক্তি সহজেই নিজের রাগকে নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারবে। পাশাপাশি নিজের মধ্যে পসিটিভ শক্তির সঞ্চার করতে পারবেন৷

শবাসন: চোখ বন্ধ করে একদম সোজা হয়ে কোনও সমান স্থানে শুয়ে পড়ুন৷ এরপর লম্বা নিঃশ্বাস নিন এবং ধীরে ধীরে ছাড়তে থাকুন৷ ঠিক এইভাবে দু মিনিট করে তিনবার করতে পারেন।

সর্বাঙ্গ আসন: নিজের হাত এবং পা সোজা করে নিয়ে মাটিতে শুয়ে পড়ুন। এবার আসতে আসতে গভীর নিঃশ্বাস নেওয়ার চেষ্টা করুন।নিঃশ্বাস নেওয়ার পাশাপাশি নিজের দুই পা উপরের দিকে তোলার চেষ্টা করুন৷ নিতম্বকে উঠিয়ে পা দুটিকে সোজা করে নিন এবং মাথার সঙ্গে ৪৫ ডিগ্রী কোণ করার চেষ্টা করুন৷ এবার শ্বাস নিতে নিতে দুই হাত দিয়ে পিঠকে সাপোর্ট দেওয়ার চেষ্টা করুন৷

অর্ধ ধনুরাসন: দুইপা একসাথে করে পেটের উপর ভর দিয়ে শুয়ে পড়ুন৷ এরপর দুহাত সোজা করে মাথার সোজাসুজি মাটির কাছে রাখুন।এবার একদিকে হাত দিয়ে সেই দিকেই পায়ের পাতা ধরার পর উপরের দিকে শরীরকে তুলুন দেখতে অনেকটা বাঁকা ধনুকের মতো মনে হবে।ঠিক এইভাবে দুই থেকে ৩ মিনিট করুন। তারপর আবার সোজা হয়ে শুয়ে বেশ কিছু সময় বিশ্রাম নিয়ে অন্যদিকে দিকের হাত ও পা দিয়ে একইভাবে করতে থাকুন।

ধ্যান বা প্রাণায়াম এর সাহায্যেই রাগকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব৷ এরমধ্যে যেকোনো একটি যোগাসন আপনি যদি টানা কমপক্ষে ২১দিন করতে পারেন তাহলেই ফল নিজেই বুঝতে পারবেন। তবে আসন করার সময় মনে রাখবেন যে আসনরত অবস্থায় কমপক্ষে এক মিনিট থাকতে হবে৷

এই যোগা প্রয়োগের সাহায্যে আপনি রাগের মাত্রা অনেকটাই কম করতে পারবেন বলে মত একাধিক বিশেষজ্ঞদের৷ তবে যেকোন ধরণের আসন করার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়ার চেষ্টা করুন৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.