স্বাধীনতার ৭০ বছর পর নরেন্দ্র মোদীর কারনেই ভারতবর্ষের এই স্থান আলোকিত হয়েছে

নিউজ ডেস্কঃ প্রধানমন্ত্রীর ‘সহজ বিজলি হর ঘর যোজনা’ বা সৌভাগ্য স্কিমের কারণে অরুণাচল প্রদেশের পশ্চিমের সিয়াং জেলায় একশো শতাংশ বিদ্যুৎ পরিষেবা পেলো সেখানকার মানুষ। পাশিঘাট জেলায় 2,662টি বাড়ি ও প্রতিষ্ঠানে 2017’র ডিসেম্বরের শেষে বিদ্যুৎ সংযোগ ঘটানো হয়।

পাশিঘাট ও সব ডিভিশন নারিকয়ু ছাড়া প্রায় 71 টি গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে যায় মোদি সরকার। পশ্চিম সিয়াং জেলার রাস্কিনের 29টি গ্রাম,পসীঘাটের 23টি ও মেবো সাব ডিভিশনের 19টি গ্রামে বিদ্যুৎ পৌছালো স্বাধীনতার 70 বছর পর।

বিদ্যুৎ বিভাগ জানিয়েছেন যে তারা 1483টি গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছেছে দিনদয়াল উপাধ্যায় গ্রাম জ্যোতি যোজনা কে কেন্দ্র করে।এই স্কিমের লক্ষ্য হলো কম খরচে বিদ্যুৎ পরিষেবা পাওয়া।

বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী দুটি বিষয়ের উপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন এক হলো স্বাস্থ্য অন্যটি হলো বিদ্যুৎ পরিষেবা। তাঁর কপালে চিন্তার ভাজের কারণ ছিল কয়েকটি রাজ্যের অন্ধকার। অর্থাৎ বিহার,ইউ পি,আসাম,অরুণাচল প্রদেশ এছাড়াও নাগাল্যান্ড কাশ্মীর ও ইত্যাদি অনেক জায়গায় একশো শতাংশ বিদ্যুৎ পৌঁছায়নি। কিন্তু 2019 শেষের আগেই তিনি দেশের কোনায় কোনায় বিদ্যুৎ পৌঁছে দিয়েছেন। নিজে একসময় কঠোর পরিশ্রম করে বড় হওয়া নরেন্দ্র মোদি ক্ষমতায় আসার পর গরিবদের পরিষেবা দেয়া নিয়ে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ হন এবং তা পূরণ করছেন অক্ষরে অক্ষরে।

যে সমস্ত জায়গায় বিদ্যুৎ সংযুক্তিকরণ সম্ভব নয় সেখানে সেখানে সৌরশক্তির মাধ্যমে বিদ্যুৎ পরিষেবার পরিকল্পনা করেছে মোদি সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.