২০২৪ সালে নাসার বিজ্ঞানীরা পৃথিবী ধ্বংসের ইঙ্গিত দিয়েছেন। কেন এমন ধারনা তাদের?

নিউজ ডেস্ক –   ২০১২ সালে  পৃথিবী ধ্বংস হবে এমন বহু গুজব রটিয়ে ছিলেন বহু মনীষীগণ।  যেটি বর্তমানে সত্যি হয়নি। কিন্তু সম্প্রতি এমন এক ধরনের উল্কাপিণ্ড পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে যার জন্য ২০২৪ সালে পৃথিবী ধ্বংস হওয়ার অনুমান করছেন নাসার বিজ্ঞানীরা। 

নাসার বিজ্ঞানীদের মতানুসারে,  প্রায় ৫.২ কিলোমিটার   প্রতি সেকেন্ডের গতিবেগে প্রতিনিয়ত পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে একটি উল্কাপিণ্ড।  প্রতি ঘন্টায়  উল্কাপিণ্ড গতিবেগ ১১,২০০ মাইল।  এই অজ্ঞাত উল্কাপিন্ডের নাম দেওয়া হয়েছে রক -১৬৩৩৪৮। যার আকৃতি লম্বায় ২৫০ থেকে ৫৭০ মিটারের এবং  চওড়া ১৩৫ মিটার। এটি কার্যত সূর্যের পাশ থেকে পৃথিবীর কক্ষপথের দিকে ধীরে ধীরে ধেয়ে আসছে। 

সেন্টার ফর আর্থ অবজেক্ট স্টাডিজের মতে, উল্কাপিণ্ডটির পৃথিবীর সঙ্গে সংঘর্ষ হওয়ার সম্ভাবনা প্রায় ৫ শতাংশ। মূলত পৃথিবীর কক্ষপথে এক  কিলোমিটারের চেয়ে বৃহদাকৃতির উল্কাপাত প্রবেশ করলে আগে থেকেই রেড অ্যালার্ট জারি করে দেওয়া হয়। সেই  ক্ষেত্রে এই অজ্ঞাত পরিচিত উল্কাপাতটি শেষ মুহূর্তে যদি পৃথিবীর সঙ্গে সংঘর্ষ হয় তাই জন্য প্রতিনিয়ত নজরদারি রাখা হচ্ছে। কারণ ভুলবশত যদি উল্কাপাত পৃথিবীর সঙ্গে সংঘর্ষ হয় তখন  লয়-প্রলয় ঘটবে গোটা পৃথিবী জুড়ে। ভূমিকম্প, সুনামি হয়ে ধ্বংস হয়ে যাবে পৃথিবীর একাংশ। কিন্তু উল্কাপিণ্ড সংঘর্ষ ঘটার আগেই সঠিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন নাসার বিজ্ঞানীরা এমনটাই জানাচ্ছেন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.