এশিয়ার সবচেয়ে মারাত্মক প্রবালের নাম জানা আছে? স্পর্শ করলেই হতে পারে মৃত্যু

নিউজ ডেস্ক – মাশরুম বা ছত্রাক খাদ্য রূপে গ্রহণ করার বিষয়টি বহুল ব্যবহৃত হয়ে গিয়েছে। মাশরুমে একাধিক কঠিন থাকার জন্য আগে আদিবাসী সম্প্রদায়ের ব্যক্তিরা এটি খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করতেন। কিন্তু বর্তমানে সেই মাশরুমের গুণগতমান প্রকাশ্যে আসার কমবেশি সকলেই যে খাদ্য হিসেবে খেয়ে থাকেন। তবে এমন একটি মাশরুম রয়েছে যেটি স্পর্শ করলেই মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়েন। এই মাশরুম খাদ্য হিসাবে খেলেই মৃত্যু অনিবার্য সেই ব্যক্তির। এমনই এক বিষাক্ত ছত্রাকের নাম হলো আগুন প্রবাল। এই ছত্রাককে বিষাক্ত বলে প্রমাণ করেছেন খোদ বিশেষজ্ঞরাই। 

জানা গিয়েছে বিষাক্ত ছত্রাক আগুন প্রবাল দেখতেও অনেক টা আগুনের মতো টকটকে লাল। জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়ার এই বিষাক্ত ছত্রাককে আর পাঁচটা সাধারণ ছত্রাকের মতোই ভোজ্য ভেবে এই বিষাক্ত আগুন প্রবাল থেকে চা তৈরি করতে গিয়েছিলেন। কিন্তু তাঁরা জানতেন না এই বিষাক্ত ছত্রাক যদি কেউ খান, তাহলে শরীরের অঙ্গ অকেজো হয়ে যেতে পারে সেইসঙ্গে মস্তিষ্কের ক্ষতিও হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এমনকি শুধুমাত্র স্পর্শেই কারো চর্মরোগ পর্যন্ত হতে পারে এই বিষাক্ত ছত্রাক এর দ্বারা। কারণ বৈজ্ঞানিক মতে ছত্রাকের সংস্পর্শে কোন ব্যক্তি আসলেই ছত্রাকে বিষক্রিয়ার মাধ্যমে ত্বকের টক্সাইড গুলিকে শুষে নেওয়া হয়। যার ফলে পরবর্তীতে চর্মরোগে আক্রান্ত হয় সে ব্যক্তি।

আগুন প্রবাদটির উৎপত্তি স্থল মূলত আফ্রিকার জঙ্গল। কিন্তু বহু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বিজ্ঞানীরা দেখেছেন বায়ুর মাধ্যমে বিষাক্ত ছত্রাকটি ব্রিজ বাতাসে ছড়িয়ে গিয়ে চিন, থাইল্যান্ড এবং পাপুয়া নিউগিনি অঞ্চলেও এর উপস্থিতির কথা জানা গিয়েছে। তবে যে সকল মানুষেরা অবগত তারা অবশ্যই এই বিষাক্ত ছত্রাকটি এড়িয়ে যান কিন্তু যারা অবগত নন তাদের একান্তই সকল ছত্রাকের বিষয়ে জ্ঞান লাভ করার পরই তা খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করা উচিত। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.