পৃথিবীর কোন দেশে ঝর্ণার জল দুদিকে দুভাগে বিভক্ত হয়ে প্রবাহিত হয় জানেন?

নিউজ ডেস্কঃ পৃথিবীতে রহস্যঘেরা জায়গার সংখ্যা নেহাত কম নয়। বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল, ডান্সিং ফরেস্ট থেকে শুরু করে জোন অফ সাইলেন্স লিস্টটা খুব একটা ছোট নয়। মানুষের কৌতূহলী মন বরাবরই এই জায়গা গুলোর রহস্য সমাধানে সচেষ্ট হয়েছেন। সব জায়গার রহস্য সমাধান করা সম্ভব না হলেও এই ধরনের জায়গার প্রতি মানুষের কৌতূহল চিরকালের। আর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডেভিলস কেটেল’ নামক ঝরনার টি এরকমই একটি রহস্যের সৃষ্টি করেছেন। এটি অবস্থিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সুপিরিয়ার লেকের উত্তর দিকে মিনেসোটা স্টেটের জাজ ম্যগনি স্টেট পার্কে। ব্রুল নদী থেকে উৎপন্ন হওয়া এই ঝরনার জল কোথায় যায় সেই নিয়েই রহস্য।

ঝর্ণাটি একটি নির্দিষ্ট স্থানে এসে বিভক্ত হয়ে দু দিকে প্রবাহিত হয়ে গড়িয়ে নিচে পড়ে। ঝরনার দুটি প্রবাহের মধ্যে পূর্বের প্রবাহটি অন্যান্য সাধারণ ঝর্ণার মতো গড়িয়ে নিচে পড়লেও পশ্চিম অংশের জল প্রবাহিত হয়ে নিচে না পড়ে একটি গর্তের মধ্যে পড়ে। আর রহস্য এটিকে ঘিরেই। দীর্ঘকাল ধরে এই ঝর্না থেকে জল ওই ছোট গর্তে পড়ে ঠিকই কিন্তু তারপর অদ্ভুতভাবে জল যেন সেখানেই মিলিয়ে যায়, এখনো পর্যন্ত গর্তের জল ভরে না ওঠায় কৌতুহলের সৃষ্টি করেছে তা। প্রশ্ন উঠেছে এত জল গিয়ে জমা হয় কোথায়?

কয়েক দশক আগেও মনে করা হতো যে ওই গর্তের ভেতরে অসংখ্য ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ছিদ্র আছে আর সেই ছিদ্র থেকেই জল নির্গত হয়ে পাশের ঝর্ণার জলের সাথে মিশে যায়। আর এটি পরীক্ষা করার জন্য ঝর্ণার জলে মেশানো হয় প্রচুর রং যাতে তা পাশের ঝর্ণার জলের সাথে মিশলে ঝর্ণার জলের রঙ পরিবর্তিত হওয়ার কথা। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে এমন কিছুই হয় না। এতে ব্যর্থ হলে পরবর্তীকালে আরও নানা পদ্ধতি অবলম্বন করে ঝর্ণার জলের গন্তব্য বোঝার চেষ্টা করা হয়েছে কিন্তু সেই সমস্ত কিছুই বিফলে গেছে। এত বছর পরেও সেই ঝরনার জল ঠিক কোথায় যায় সেই রহস্য ভেদ করা সম্ভব হয়ে ওঠেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.