রানী এলিজাবেথকে ইঁদুরের মাংস খাইয়েছিল কোন দেশের মানুষ?

নিউজ ডেস্ক: এই দেশের মানুষেরা ইঁদুরের মাংস খেতে খুব পছন্দ করে। বেলিজ মধ্য আমেরিকার একটি দেশ যার রাজধানী হল বেলমোপেন। বেলিজ দেশের বর্ডার মেক্সিকো, গুয়াতেমালা ও ক্যারিবিয়ান সাগরের সঙ্গে সংযুক্ত। এ দেশের জনসংখ্যা প্রায় 383,066 জন এবং এই দেশ প্রায় 22 হাজার 970 কিলোমিটার জুড়ে বিস্তৃত।

বেলিজ দেশ সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য হলো:

1. বেলিজ মধ্য আমেরিকার একমাত্র দেশ যার অফিশিয়াল ল্যাঙ্গুয়েজ হলো ইংলিশ। কিন্তু ইংলিশ ছাড়াও এই দেশে ক্রেওল, স্প্যানিশ, গ্লারিপুনা ও মায়ান ভাষায় অনেকে কথা বলে থাকে।

2. প্রতিবছর এই দেশের 10 সেপ্টেম্বর জাতীয় দিবস সেন্ট জর্জেও দিবস পালন করা হয়। 1798 খ্রিস্টাব্দের এই দিনে ব্রিটিশ সেনা স্প্যানিশ সেনাদের এদেশ থেকে বিতাড়িত করেছিল।

3. এই দেশের সবথেকে বেশি সংখ্যক কৃষক রয়েছে কৃষি কাজের ক্ষেত্রে এই দেশের মানুষের অনেক বেশি আগ্রহী হয়ে থাকে। এবং এই দেশের অর্থনীতির এক বিশাল অংশ হলো কৃষিকাজ।

4. বেলিজ দেশটি ইউনাইটেড কিংডম দেশ থেকে 1981 খ্রিস্টাব্দের একুশে সেপ্টেম্বর স্বাধীনতা অর্জন করে। জর্জ গ্যাডেল প্রাইস এই দেশের সর্বপ্রথম প্রধানমন্ত্রী হয়েছিল। এবং তখনকার সময় জর্জ গ্যাডেল প্রাইস এর কাজের জন্য এখনও সেখানকার মানুষ এখনো তাকে শ্রদ্ধা করেন।

5. বেলিজ দেশের সড়কে খুবই দুর্লভ সংখ্যক লালবাতি দেখা যায়। বলা হয় এখানকার মানুষের রেড লাইটের কখনো দরকারই পড়ে না। এই দেশের ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের জন্য স্প্রিড ব্রেকার ব্যবহার করে।

6. মধ্য আমেরিকার সবথেকে পুরনো সভ্যতা গুলির মধ্যে একটি হলো মায়া এম্পেয়ার। এই মায়ের সভ্যতার তখনকার সময়ের তুলনায় অনেক বেশি আধুনিক ছিল। এবং তখনকার যুগে মায়া সভ্যতার রাজধানী ছিল বেলিজ।

7. এই দেশের মানুষের মেন্টালিটি অনেকটা ব্রিটিশদের মেন্টালিটির মত হয়ে থাকে। এদেশের মানুষরা জীবন  খুব আনন্দ মজা করে কাটাতে পছন্দ করে।

8. এখানকার মানুষেরা ইঁদুরের মাংস খেতে খুব পছন্দ করে। এমনকি কুইন এলিজাবেথ যখন এ দেশে এসেছিলেন তাকেও ইঁদুরের মাংস খাওয়ানো হয়েছিল।

9. এই দেশে পৃথিবীর সবথেকে বেশি চিৎকার করার পশুদের মধ্যে এক প্রজাতির ব্লাক হাওলার বাঁদর দেখা যায়। এখানকার মানুষেরা এই বাঁদরদের অনেক সম্মান করে।

10. এই দেশে এখনো 900 বেশি মায়া সভ্যতায় তৈরি মন্দির গুলি রয়েছে। এখানকার মানুষেরা এই মন্দিরগুলিতে গিয়ে প্রার্থনা করেন।

11. এই দেশে ঘুরতে আসা 10 লাখ পর্যটকদের মধ্যে 7 লাখ আমেরিকার লোক। আমেরিকার লোকেরা এই দেশকে তাদের দ্বিতীয় বাড়ি বলে মনে করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.