চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। ক্যাস্টর ওয়েল অসাধারন কিছু কাজ

নিউজ ডেস্কঃ ক্যাস্টর অয়েল বা রেড়ির তেল আমাদের সকলেরই অত্যন্ত পরিচিত এক তেল।প্রাচীনকাল থেকেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই তেল ব্যবহৃত হয়ে এসেছে ।বর্তমানে এর ব্যবহার আগের থেকে একটু কমেছে ঠিকই তবে এই তেলের গুনাগুন অপরিসীম। চুল ও ত্বকের বিভিন্ন সমস্যায় এই তেল যেমন ব্যবহার করা হয় তেমনই ঔষধ নির্মাণ ,শিল্প সহ নানা ক্ষেত্রেও ব্যবহৃত হয় এটি।প্রাচীনকালে মহিলাদের প্রসব যন্ত্রণা কমাতেও ব্যবহার করা হতো এটি ।Ricinus Communis নামক গাছের বীজ থেকে নিঃসরণ করা হয় ক্যাস্টর অয়েল ।

আসুন আজ জেনে নেই সর্ব্বগুণসম্পন্ন ক্যাস্টর অয়েলের রূপচর্চায় কয়েকটি  ব্যবহারের কথা

ব্রন দূর করতে 

যে কোন প্রকার ত্বকেই ব্রণ এক খুবই পরিচিত সমস্যা ।এই ব্রণ ত্বকের সৌন্দর্য যেমন কেড়ে নেয় তেমনি ব্রণ থেকে অনেক সময় সৃষ্টি হয় ব্যাথা সহ নানা সমস্যার ও।অনেক সময় বহু কষ্টে ব্রনের সমস্য মিটলেও ব্রণের দাগ থেকে যায় ত্বকে ।এক্ষেত্রে ব্রন ও ব্রনের দাগ দূর করতে ব্যবহার করুন ক্যাস্টর অয়েল ।

ব্রন দূর করার জন্য প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে ক্যাস্টর অয়েল ভালো করে হালকা হাতে ম্যাসাজ করুন ত্বকে। সকালবেলা উঠে ভাল করে ঠান্ডা জল দিয়ে এরপর মুখ ধুয়ে ফেললেই দেখবেন ত্বক আগের থেকে পরিষ্কার হয়েছে। নিয়মিত ঘুমোনোর আগে ক্যাস্টর অয়েল ব্যবহার করলে এই তেলে থাকা ফ্যাটি অ্যাসিড ব্রন ও ব্রনের দাগ দূর করতে সাহায্য করে ।

রোদে পোড়া দাগ দূর করতে

ত্বকের যেকোনো রকম ট্যান বা কালো দাগ দূর করতে ক্যাস্টর অয়েল খুব ভালো কাজ দেয়।রোদে পোড়া দাগ দূর করতে অনেকেই ব্লিচ ব্যবহার করেন তবে ব্লিচ ব্যবহারে ত্বকের ভীষণ পরিমাণে ক্ষতি হয় ।এক্ষেত্রে ট্যান দূর করতে ক্যাস্টর অয়েলের সাথে লেবুর রস মিশিয়ে তা আধঘন্টা ত্বকে লাগিয়ে রাখুন।তারপর ভালো করে জল দিয়ে ত্বক ধুয়ে ফেলুন।কিছুদিন নিয়মিত এটি ব্যবহার করলে ত্বকের যে কোনো রকমের দাগ গায়েব হয়ে যাবে । 

চুলের ফেটে  যাওয়া রোধ করতে

স্ট্রেটনিং ,স্মুথেনিং সহ নানা ট্রিটমেন্টের জন্য বা অনেক সময় চুলের সঠিক যত্ন না নেওয়ার ফলে চুলের আগা ফেটে যাওয়ার মত ঘটনা দেখা যায় ।এর ফলে চুল হয়ে ওঠে রুক্ষ ।চুলের ফেটে যাওয়া রোধ করতে সপ্তাহে তিন থেকে চার বার ক্যাস্টর অয়েল ভালো করে চুলে ম্যাসাজ করুন ।দেখবেন চুল যেমন সুন্দর হয়ে উঠেছে ঠিক তেমনি চুলের খুশকিও রোধ হয়েছে ।

বলিরেখা দূর করতে

বয়সের সাথে সাথে ত্বকে বলিরেখা দেখা দেবে এটা তো স্বাভাবিক কিন্তু অনেক সময় আমাদের পারিপার্শ্বিক পরিবেশের প্রভাবে কম বয়সেই বলিরেখা দেখা দেয় ত্বকে ।এই বলিরেখা থেকে মুক্তি পেতে প্রতিদিন রাতে শোয়ার আগে মুখে ক্যাস্টর অয়েল লাগিয়ে হালকা করে ম্যাসাজ করুন ।দেখবেন ত্বকের বলিরেখা অনেকটা কমে এসেছে সেই সঙ্গে ত্বক হয়ে উঠেছে উজ্জ্বল ।

ফাটা গোড়ালির যত্নে

ফাটা গোড়ালির সমস্যায় আমাদের মধ্যে অনেকেই ভোগেন ।অনেক সময় নানা ক্রিম লাগিয়ে ও মেলেনা কোন সুরাহা ।ফাটা গোড়ালির সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে চাইলে ক্যাস্টর অয়েল দিয়ে বাড়িতে করতে পারেন এক ধরনের পেডিকিউর ।

সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার সামান্য উষ্ণ জলে কয়েক চা চামচ ক্যাস্টর অয়েল অল্প পরিমাণে পছন্দমত শ্যাম্পু মিশিয়ে গোড়ালি ডুবিয়ে রাখুন 10 থেকে 15 মিনিট । এরপর ভালো করে পা কিছুক্ষণ ধরে ঘষে নিন ।এতে পায়ের যাবতীয় মরা চামড়া উঠে যাবে ও ত্বক হয়ে উঠবে নরম ।এরপর রাতে শোবার সময় অল্প একটু ক্যাস্টর অয়েল ও গ্লিসারিন মিশিয়ে গোড়ালিতে ম্যাসাজ করুন ভালো করে এবং সেই সঙ্গে সারারাত মোজা পড়েই ঘুমোন ।পরদিন সকালে উঠে দেখবেন এক অসাধারন পরিবর্তন ।

নখের যত্নে

নখ বড় করতে চান অথচ নখ অল্প বড় হলেই সঙ্গে সঙ্গে ভেঙে যায় ।এরকম ভঙ্গুর নখের সমস্যা যদি আপনার থেকে থাকে তবে ক্যাস্টর অয়েল ব্যবহার করে দেখুন ।প্রতিদিন সময় করে অল্প পরিমাণ ক্যাস্টর অয়েল নিয়ে নখে ভালো করে ম্যাসাজ করুন ।নিয়মিত ব্যবহারে নখ হয়ে উঠবে মজবুত ও সুন্দর ।

 ফাটা ঠোঁট দূর করতে

ফাটা ঠোঁট মূলত শীতকালের সমস্যা হলেও 12 মাসেই ঠোঁট ফাটার মত সমস্যা দেখা দিতে পারে অনেকের ।এক্ষেত্রে ঠোঁটকে ঠিকমতো ময়শ্চারাইজ করা খুবই দরকার ।আর এই ফাটা ঠোঁটের যত্ন নিতে ক্যাস্টর অয়েল এর থেকে বেশি উপকারী আর কিছু হতে পারে না ।নিয়মিত ক্যাস্টর অয়েল অল্প পরিমাণে নিয়ে ঠোঁটে ভালো করে ম্যাসাজ করলে এই ওয়েলে থাকা ভিটামিন এ ও ফ্যাটি এসিড ঠোঁটকে করে তোলে ময়েশ্চারাইজড ও গোলাপি ।

হাতের যত্নে

শুধু মুখে নয় হাত ও পায়ের ময়েশ্চারাইজার হিসেবেও ব্যবহার করতে পারেন ক্যাস্টর অয়েল ।অল্প পরিমাণে আমন্ড অয়েলের সাথে ক্যাস্টর অয়েল ভালো করে মিশিয়ে হাতে ও পায়ের মাসাজ করলে যেমন ফিরে আসবে গ্লো তেমনি হাত ও পায়ের ট্যান ও হবে দূর ।

চুলের বৃদ্ধিতে

পাতলা চুল বা চুল পড়ে যাওয়ার মতো সমস্যায় আপনি যদি ভুগে থাকেন তবে আজ থেকে ব্যবহার শুরু করুন ক্যাস্টর অয়েলের ।বেশি কিছু করতে হবেনা শুধু স্নানের আধঘন্টা আগে ক্যাস্টর অয়েল ও অলিভ অয়েল ভালো করে মিশিয়ে চুলের গোড়ায় লাগান ।নিয়মিত এর ব্যবহার চুলের বৃদ্ধি যেমন দ্রুত করবে ঠিক তেমনি চুলকে গড়ে তুলবে ঘন ও মজবুত ।

চোখের পাপড়ি ও ভ্রুর যত্নে

আমরা অনেকেই দীর্ঘ চোখের পাপড়ি ও ঘন ভ্রু  চাই প্রাকৃতিক ভাবে।এটা দেখতে সুন্দর লাগে ঠিকই তবে আমাদের সকলের ই লম্বা চোখের পাপড়ি ঘন ভ্রু থাকে না প্রাকৃতিক ভাবে ।এক্ষেত্রে ব্যবহার করে দেখতে পারেন ক্যাস্টর অয়েল ।নিয়মিত ভ্রু এবং চোখের পাপড়িতে ক্যাস্টর অয়েল এপ্লাই করলে ঘন হয়ে উঠবে এগুলি ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.