সংগীত মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত ডেকে নিয়ে আসতে পারে

নিউজ ডেস্ক মিউজিক অর্থাৎ সংগীত এমন একটি জিনিস যা শুনলে মানুষের স্ট্রেস অনেকটাই কমে যায়। আমার মন ভালো থাকলে অনেকে গান শুনে থাকেন কিংবা কোনো উৎসবের ক্ষেত্র গান চালানো হয়। কিন্তু এমন একটি সংগীত রয়েছে যার ৯ নম্বর সুর সৃষ্টি করতে গিয়ে মৃত্যু হয়েছে অনেক সুরকারের। অনেকেই বিষয়টি গল্পচ্ছলে নিলেও বর্তমানে এটি বাস্তব। যার কারণে অনেকেই ৯ নম্বার সিম্ফোনিকে “সিম্ফনি অফ ডেথ বা কার্সড নম্বার ফর সিম্ফোনি” বলে আখ্যায়িত করেন। একটু খোলাসা করেই বলা যায় বিষয়টি। 

ইউরোপের ধ্রুপদী সঙ্গীতের জগতে ৯ নম্বর সিম্ফোনি তৈরি করতে গিয়ে মৃত্যু হয়েছিল ৭ জন সুরকারের। অনেক ক্ষেত্রে দেখা গেছে ৯ নম্বর সিম্ফোনি শুরু করতে গিয়ে, আবার সেটি শেষ করে কিংবা শুরু করার আগেই মৃত্যু হয়েছে অনেক শুরকারের। কার্যত এমন ভয়াবহ জিনিসটি সৃষ্টি হয় অস্ট্রিয়ান সুরস্রষ্টা গুস্তাভ মাহলারকে কেন্দ্র করে। এই সুরকার ৯ নম্বর সিম্ফোনি রচনা করার পরেই মারা যান। এর পরবর্তী থেকে ক্রমান্বয়ে চলে যাচ্ছে বিষয়টি। এরপরে মৃত্যু হয় বিথোভেনও, ফ্রানজ শুবার্ট, আঁতোনিন ভোরাক, ভন উইলিয়ামস, কার্ট আটেরবার্গ, আরফ্রেড শ্লিটকে, পিটার মেনিন, ম্যালকম আর্নল্ড সহ একাধিক সুরকারের যারা ৯ নম্বর সিম্ফোনি লেখার পরে মারা গিয়েছেন।    যার কারণে তাদের সংগীত অ্যালবাম কোন দিন ১০  নম্বর সিম্ফোনি গঠিত হয়নি।   যদিও আশ্চর্যজনক বিষয় যে সংগীতশিল্পী বিথোভেন ছিলেন অবশিষ্ট ব্যক্তি যিনি একমাত্র ৯ নম্বর সিম্ফনিটি সম্পূর্ণ করার পর ১০ সিম্ফোনি তৈরি করেছিলেন। 

 তবে আশ্চর্যজনক বিষয় এই সংগীতে এমন কি রয়েছে যার জন্য একাধিক সঙ্গীত পরিচালকের মৃত্যু হচ্ছে সেই সূত্র এখনো প্রকাশ্যে আসেনি। যদিও এর তল খুঁজে পেতে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে বিশেষজ্ঞরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.