এই ৪ প্রজাতির কুকুরের থেকে সর্বদা দূরে থাকুন সর্বদা

১) Wolf Hybrids: এই কুকুরগুলো খুবই মারাত্মক হয়ে থাকে। এরা কুকুর ও নেকড়ের মিলিত একটি প্রজাতি।এই প্রজাতিগুলি খুব হিংস্র প্রকৃতির হয়ে থাকে।তাই এই জাতি কুকুরদের ইউরোপের অনেক দেশেই পালন করা নিষিদ্ধ।এই কুকুরগুলির ওজন ৩৬-৬০ কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে।এদের মধ্যে নেকড়ের মতো স্বভাব থাকায় এরা শুধুমাত্র অন্য লোকজনকেই আক্রমণ করে তা নয় এরা এদের মালিকেও আক্রমণ করে বসে।১৯৮৯-১৯৯৮ সালের মধ্যে এই কুকুরের কামড়ে অ্যামেরিকায় ২৪ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

২)Pit Bull: এই কুকুরগুলো অ্যামেরিকার সবচেয়ে মারাত্মক ও ভয়ংকর প্রজাতিদের মধ্যে একটি।এদের ওজন প্রায় ৩০-৫০ কেজির মতো হয়ে থাকে।এরা এতটাই মারাত্মক যে এদেরকে অনেক দেশেই পালন করার ক্ষেত্রে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।এই প্রজাতির কুকুরগুলো অ্যামেরিকার বুলডগের প্রজাতির সাথে সম্পৃক্ত।এরা প্রচণ্ড পরিমানে হিংস্র ও আক্রমণাত্মক হয়ে থাকে তাই এদের খুব ভালো প্রশিক্ষন দেওয়া প্রয়োজন। ২০১৫ সালে এই কুকুরের কামড়ে অ্যামেরিকায় ২৮ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

৩)Tibetian Mastiff: এই কুকুরটি পৃথিবীর সবচেয়ে দামি কুকুর এবং এরাই সবচেয়ে মারাত্মক কুকুরের মধ্যে একটি।এই কুকুরগুলি বিশাল আকারের হয়ে থাকে।এদের ওজন  ৫০-৯০ কেজির মতো হয়ে থাকে এবং এদের উচ্চতা ২.৫-৪.৫ ফুট হয়ে থাকে।এরা ১৪ বছর পর্যন্ত বাচতে পারে।এরা এতটাই মারাত্মক প্রকৃতির হয়ে থাকে এরা যেকোনো মানুষকে মেরে ফেলতে সক্ষম এরা যদি রেগে যায় তাহলে শান্ত হতে অনেক সময় লাগে।তাই এদেরকে বেশিভাগ সময় চেন দিয়ে বেঁধে রাখা হয়।

৪) Doberman Pinschers: এই কুকুরগুলি অন্যান্য কুকুরের থেকে সুরক্ষা প্রদানে করতে বেশি সক্ষম তাই এদেরকে পুলিশ ও মেলেটারিদের কাছ বেশিভাগ সময় দেখা যায়।এদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হল যে এদের ঘ্রাণশক্তি খুব তীব্র এবং এরা খুব চতুর হয়ে থাকে।তাই এরা সবচেয়ে মারাত্মক কুকুরদের মধ্যে একটি।এই কুকুরগুলির ওজন হয়ে থাকে ২৫-৪০ কেজির মতো হয় এবং এরা লম্বায় প্রায় ৩০ ইঞ্চির মতো হয়ে থাকে।এরা খুব মারাত্মক হলেও এরা এদের মালিকের উপর আক্রমণ করে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.