ঋত্বিক রোশনের কোন ছবি ৯২ টি পুরস্কার জিতে গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়েছিল?

নিউজ ডেস্ক  – টিভির পর্দায় আমরা কমবেশি সকলেই আমাদের পছন্দের অভিনেতা ও অভিনেত্রীর  প্রদর্শিত সিনেমা দেখে থাকি। সকল মানুষকেই সেটা বিনোদন দেয়। তবে টিভির পর্দার আড়ালে অর্থাৎ অফ স্ক্রিনেও এমন কিছু ঘটনা ঘটে যেগুলো আমরা প্রায় জানিনা। কারণ সকল জনপ্রিয় তারকাদের পেছনে রয়েছে একটি অপ্রকাশিত দুঃখজনক গল্প।  ঠিক সেভাবেই এই প্রতিবেদনও বেশ কয়েকটি উদাহরণ তুলে ধরা হলো।  

১)  অমিতাভ বচ্চনের যিনি প্রেমিকা তিনি মা –  বিষয়টা শুনতে আজব লাগলেও সত্যি।  সবাই জানে অমিতাভ বচ্চনের স্ত্রী জয়া বচ্চন।  তবে বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ওয়াহিদা রেহমান অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে  ১৯৭৬ সালে মুক্তি পাওয়া সিনেমা আদালতে তার প্রেমিকা হয়েছিলেন।  সেই সিনেমার দু’বছর বাদে অর্থাৎ  ১৯৭৮ সরাই ত্রিশূল ছবিতে আবার মায়ের ভূমিকা পালন করেছিলেন।  অর্থাৎ যিনি ছিলেন প্রেমিকা তিনি হয়ে গেলেন মা। 

২)  সুনীল দত্ত ও নার্গিসের সম্পর্ক —   সুনীল দত্তের নিজের একটি ব্যক্তিত্ব থাকার পাশাপাশি তিনি  ছিলেন সঞ্জয় দত্তের পিতা।  সুনীল দত্ত এবং নার্গিস মিলাদের দুজনের ধর্ম আলাদা থাকলেও তারা পরবর্তীতে দম্পতি হয়েছিল। তবে মজার বিষয় হচ্ছে বলিউডে পা রাখার আগেই সুনীল দত্ত ছিলেন একজন জকি। সুতরাং সেই হিসেবে তার প্রিয় অভিনেত্রী নার্গিস একটি সাক্ষাৎকার নেওয়ার জন্য অনেকদিন অপেক্ষা করছিলেন তিনি। অবশেষে সেই সুযোগ আসতেই তিনি এতটাই নার্ভাস হয়ে পড়েছিলাম যে সাক্ষাৎকারে কোন প্রশ্ন জিজ্ঞেস করতে পারেননি নার্গিসকে। তা কয়েক বছর পরেই সুনীল দত্ত ও নার্গিস মাদার ইন্ডিয়া ছবিতে একসঙ্গে কাজ করেছিলেন।  যেখানে সুনীল দত্তের মায়ের ভূমিকা পালন করেছিলেন।  যথারীতি সেখান থেকে সূত্রপাত ঘটে সম্পর্কের।  ১৯৫৮  সালে বিবাহ করেন তারা । 

৩)   কারিনা কাপুরের পোশাকি বাহার –   সবাই জানেন বলিউডের গসিপ গার্ল নামে পরিচিত কারা কাপুর খান। সেই কারিনা কাপুর ২০১২সালে  একটি সিনেমা করেছিল যার নাম হিরোইন।  যদিও এই সিনেমা জনপ্রিয়তা লাভ করেনি সেইভাবে।  তবুও এই সিনেমাটাতে নিজেকে প্রকাশ করতে প্রায় ১৩০টি  পোশাক বদল করতে হয়েছিল সইফ আলী খানের পত্নীকে। সেই পোশাক কোন সাধারন পোষাক ছিল না বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ফ্যাশন ডিজাইন ডিজাইন করেছিলেন।  

৪) গ্যারেজের জীবনের থেকে সূত্রপাত অনিল কাপুরের  – ৮০ ও ৯০ দশকের তুমুল জনপ্রিয় একজন নায়ক হচ্ছেন অনিল কাপুর । যদিও টোয়েন্টি ফার্স্ট  সেঞ্চুরিতে তার জনপ্রিয়তা কোন অংশে কমেনি। তবে তিনি জনপ্রিয় হয়ে ওঠার আগে যখন প্রথম মুম্বাইতে এসেছিলেন তখন রাজ কাপুরের বাড়ির গ্যারেজে থাকতেন। রাজ কাপুর হচ্ছে বলিউডের একজন বর্ষীয়ান অভিনেতা তথা চলচ্চিত্র পরিচালক ও প্রযোজক।  যদিও বর্তমানে প্রয়াত হয়েছেন তিনি।  

৫)   ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়েছিল ঋত্বিক রোশনের ছবি —   সিনেমা জগতে কাহনা পেয়ার হে সিনেমার মাধ্যমে অভিষেক ঘটেছিল ঋত্বিক রোশনের। সেই সিনেমায় রিত্তিক এর বিপরীতে তার নায়িকা হিসেবে ছিলেন আমিশা প্যাটেল।  সেই সময় অর্থাৎ ২০০২ সালে মুক্তি পাওয়া সিনেমা গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়েছিল।  কারণ এই সিনেমাটা যখন মুক্তি পায়  তার পরের বছরই ৯২টি পুরষ্কার জিতে নিয়েছিল। বিশ্বের আর কোন ছবি এখনও পর্যন্ত এত পুরস্কার জেতেন।  পুরস্কারগুলি ছিল  যথাক্রমে  স্টরি পিক, স্কুপ হুপ, টাইমস অফ ইন্ডিয়া এবং নাদিয়া মাহমুদ  সহ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.