গরীব দেশ হওয়া সত্ত্বেও পলিথিন নিষিদ্ধ আফ্রিকার যে দেশে

নিউজ ডেস্ক- রুয়ান্ডা আফ্রিকার পূর্ব মধ্যাংশে অবস্থিত। দেশটির সরকারি নাম রিপাবলিক অফ রুয়ান্ডা। এটি আফ্রিকা মহাদেশের একটি ছোট্ট দেশ এখানকার মোট জনসংখ্যা প্রায় 80 লাখ। এই দেশের রাজধানী ও সবথেকে বড় শহর হল কিগালি। দেশের বেশিরভাগ মানুষই রাজধানীতে বসবাস করে। এখানকার সরকারি ভাষা গুলি হল কিনিয়ারোয়ান্ডা, ফরাসি, ইংরেজি ও সোয়াহিলি। 

রুয়ান্ডা এর সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য হলো

1.এদেশের উর্বর ও পাহাড়ী ভূমির কারণে এর নামকরণ করা হয়েছে হাজার পাহাড়ের দেশ। এদেশে রয়েছে বিশাল কিছু উঁচু পর্বত। এবং এদেশে  বিলুপ্তপ্রায় গরিলার দেখা যায়। 

2. প্রস্তর যুগ থেকে এই দেশে মানব বসতি গড়ে ওঠে। পরবর্তীতে এই জায়গায় বান্টু প্রজাতির জনগোষ্ঠী বসবাস শুরু করে যারা পরবর্তীকালে দেশটিকে প্রতিষ্ঠা করে। 

3. এই দেশের রাজধানী কিগালি বর্তমানে আফ্রিকার সবথেকে পরিচ্ছন্ন শহরের খ্যাতি অর্জন করেছে। এখানকার রাস্তায় কোন আবর্জনা এমনকি একটি ছোট কাগজের টুকরো পড়ে থাকতে দেখা যায় না। পুরো আফ্রিকা মহাদেশের মধ্যে এই শহরটি সবথেকে পরিষ্কার এখানে আবর্জনা অস্তিত্ব নেই বললেই চলে। 

4. মানব ইতিহাসে সবথেকে ভয়াবহতার সাক্ষী ছিলেন রুয়ান্ডা। 100 দিন ধরে চলা সেই জাতিগত দাঙ্গায় নিহত হয়েছিল দেশটির 8 লক্ষ মানুষ। যার চার ভাগের তিন ভাগই ছিল তুতসি জনগোষ্ঠীর। নিহতের সংখ্যা নিয়ে অবশ্য বিতর্ক রয়েছে। গণহত্যায় নির্বিচারে তুতসিদের হত্যা করেছিলেন হুতুরা। এই গনহত্যার সঠিক বিচার পায়নি রুয়ান্ডা। এই গনহত্যা ছিল পৃথিবীর ইতিহাসের এক অন্যতম বীভৎস গণহত্যা গুলির মধ্যে একটি। এই গনহত্যা বিশ্ববাসীকে স্তব্ধ করে দিয়েছিল। 

5. আজ এই গণহত্যার ২৫ বছর পর রুয়ান্ডা সবথেকে নিরাপদ দেশ গুলির মধ্যে একটি।

6. রুয়ান্ডা দেশে পলিথিন নিষিদ্ধ। এর সূত্রপাত হয় এখানকার এয়ারপোর্ট থেকে কাউকেই পলিথিনের কোন ব্যাগ নিয়ে এই শহরে ঢুকতে দেওয়া হয় না। 

7. দেশটিতে হেলমেট ছাড়া কোন বাইক চালক রাস্তায় দেখা যায়না। প্রত্যেকে অতিরিক্ত একটি করে হেলমেট নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। এখানকার মানুষের প্রিয় যান হল মোটরসাইকেল। বেশিরভাগ মানুষ মোটরসাইকেলের চলাফেরা করে। 

8. দেশটি 9 বছর পর্যন্ত বিনামূল্যে শিক্ষা ব্যবস্থা রয়েছে। আফ্রিকা মহাদেশের এই দেশটি শিক্ষার দিক থেকে অনেকটা উন্নত। দেশটির শিক্ষার হার 71 শতাংশ। 

9. এই দেশের মুদ্রার নাম রওয়ান্ডা ফ্রানক। ভারতীয় এক টাকার সমান প্রায় 12 টাকা 40 পয়সা রওয়ান্ডা ফ্রানক।

10. এই দেশে কোন ইমুগানডা নামক এক উৎসব পালন করা হয়। এই উৎসবটি প্রতি মাসের শেষ শনিবার এ পালন করা হয়। এই দিন তাতে সবার ছুটি থাকে এবং এই দিনে এই দেশের রাষ্ট্রপ্রতির সহিত দেশের প্রত্যেক জনগণ নিজেদের বাড়ির সামনের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.