কলা বৌ আসলে কে জানেন?

দুর্গা পূজা বাঙালিদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি পূজা কারন এটি হল বাঙালিদের জাতীয় উৎসব।মা দুর্গাকে আমরা মহিষাসুর মর্দিনীও বলি।এছাড়াও মা দুর্গা একাধিক নাম আছে এবং একাধিক নামের সাথে একাধিক রূপ আছে যা আমরা প্রায় সবাই জানি।কিন্তু দেবী দুর্গার এই একাধিক রূপে মধ্যে এমন একটি রূপ আছে যার কথা বলতে গেলে অনেকেই জানেন না।তাহলে জেনে নিন দেবী দুর্গা এই অজানা রুপের কথা। দেবী দুর্গার একাধিক রুপের মধ্যে একটি অন্যতম রূপ হল কলাবউ।আপনারা অনেকেই জানেন যে এই কলাবউ হলেন গনেশের বউ।কিন্তু কথাটা সম্পূর্ণ ভুল।কলাবউ হলেন দেবী দুর্গার একটি রূপ অর্থাৎ গনেশের মাতা।কলা বউ যাকে আমরা বলি তিনি হলেন নবপত্রিকা।অর্থাৎ নবপত্রিকার প্রচালিত নাম হল কলাবউ।

এই নবপত্রিকা হলেন স্বয়ং মা দুর্গা যিনি গণেশের মাতা। এই নবপত্রিকার আক্ষরিক অর্থ হল নটি ধরনের পাতা।এই নটি উদ্ভিদ যথাক্রমে হল কলাগাছ, কচু ,হলুদ ,বেল, ডার্লিম, জয়ন্তী অশোক, মান, ধান।এই নটি উদ্ভিদে সহযোগে তৈরি হয় নবপত্রিকা যা  বস্তবে   মা দুর্গার এক একটি শক্তির প্রতীক। দুর্গা পূজার সময় একটি কলা গাছের সাথে বেল সমেত অপরাজিতার লতা দিয়ে বেঁধে মহাসপ্তমীর দিন সকালে মন্ত্র দিয়ে স্নান করানো হয় গঙ্গাতে বা কোন পুকুরে। এরপর শাস্ত্র বিধি অনুসারে নবপত্রিকাকে একটি নতুন লালপাড়ওয়ালা সাদা   শাড়ি পড়ানো হয় এবং সিঁদুর দেওয়া হয়।এরপর মা দুর্গার ডানদিকে তথা গনেশের পাশে স্থান দেওয়া হয় নবপত্রিকাকে।তাহলে বুঝতেই পারছেন যে কলাবউ হল দেবী দুর্গার রূপ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.