কন্ডিশনার হিসাবে কাজে লাগান। চা ছাঁকার পর পাতা ফেলে না দিয়ে যে কাজে ব্যবহার করতে পারেন

নিউজ ডেস্কঃ চা করার পর কি চা পাতা ফেলে দিচ্ছেন? উত্তরটি নিশ্চয় হ্যাঁ হবে।আর এটা করাটাই স্বাভাবিক ব্যাপার।কারণ বেশিরভাগ মানুষই জানে না যে এই ফোটানো চা পাতার মধ্যে প্রচুর গুণ থাকে।তাহলে এবার থেকে  ফোটানো চা পাতা ফেলে না  দিয়ে ব্যবহার করুন।কিভাবে ব্যবহার করবেন জেনে নিন। 

ক্ষত কমাতে সাহায্য করেঃ 

ক্ষত সারাতে চায়ের পাতা বিশেষভাবে কার্যকরী।তাই রান্নাঘরে সব্জি কাটতে গিয়ে হাত কেটে গেল অ্যান্টিসেপটিক খুঁজছে সময় নষ্ট না করে রান্না ঘরে থাকা চায়ের পাতা ব্যবহার করুন কারণ এতে অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট নামক উপাদান থাকে যা ক্ষত সারাতে সাহায্য করে। যেই স্থানে কেটে গেছে সেখানে একটু চায়ের পাতাগুলি ভাল করে সিদ্ধ করে নিয়ে লাগিয়ে রাখুন।এতে দেখবেন ভালো উপকার পাবেন।

গাছের সার হিসাবে ব্যবহারঃ 

বাগান তৈরি করতে গেলে সব থেকে একটি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হল গাছের সার।আর ভালো  সার হিসাবে ফোটানো চায়ের পাতা বিকল্প হয় না।তাই ফোটানো চা পাতা জমিয়ে রেখে  রোদে শুকিয়ে নিন এরপর সার হিসেবে গাছের গোড়ায় ব্যবহার করুন।

কন্ডিশনার হিসাবে

প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসাবে চায়ের পাতার মতো উপাদানে জুড়ি মেলা ভার।আর শ্যাম্পু করার পর  কন্ডিশনার ব্যবহার করা উচিত তা না হলে চুল নিষ্প্রাণ হয়ে পড়ে।চুলের উপকারের জন্য ব্যবহার করা  কন্ডিশনার যদি বাইরের তৈরি  কন্ডিশনারের পরিবর্তে ঘরোয়া উপকরন দিয়ে তৈরি অর্থাৎ প্রাকৃতিক কন্ডিশনার যদি মেখে হয় তাহলে তা আরও বেশি করে আমাদের চুলের যত্ন নিতে পারেন। তাই কন্ডিশনার বানানোর জন্য ফোটানো চায়ের পাতা সিদ্ধ করে নিন।তারপর শ্যাম্পু করার পর সেই জল দিয়ে চুল ধুয়ে নিন এতে চুল মোলায়েম হয়ে উঠবে।

জুতোর দুর্গন্ধ তাড়াতে

অনেকের জুতো থেকে দুর্গন্ধ বের হয় যা একটি অস্বস্তিকর ব্যাপার।তাই আর নয়।এবার এই জুতোর গন্ধ দূর করুন অনায়শে।তার জন্য দরকার শুধুমাত্র গ্রিনটি।এই গ্রিনটির পাতা একদিন জুতোর ভিতরে রেখে দিন তাহলে দেখবেন  গন্ধ দূর গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.