মাত্র ১৬ বছর বয়সেই ১৯১ বার হয়েছিল যে আসামির

নিউজ ডেস্ক গোটা পৃথিবীতে ক্রাইম কমবেশি হয়েই থাকে।  যেখানে মূলত গণনায় সংখ্যা বেশি দেখা যায় যুবক সহ প্রাপ্ত বয়স্কদের। অর্থাৎ প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার পরেই একাধিক চাহিদা বৃদ্ধি পায় বহু মানুষের। কার্যত সেই চাহিদা পূরণের জন্য অর্থ পর্যাপ্ত না থাকার কারণেই খুব দ্রুত অর্থ কামায়ের জন্য অসৎ পথ বেছে নেন  বহু মানুষ। কিন্তু এমন একটি দেশ রয়েছে যেখানে নাবালকরা একশ বারের বেশী অপরাধ করার কারনে জেলে গিয়েছে।  অবিশ্বাস্যকর দৃশ্য দেখা যায় ব্রিটেনে। 

জানা গিয়েছে ব্রিটেনে একটি ১৬ বছর বয়সী নাবালক ১৯১ বার  নানান অপরাধ করার কারণে জেল হেফাজতে  গিয়েছে। তবে শুধু একটিমাত্র নাবালক নয় এর পরের স্থানে রয়েছে আরেক নাবালক যে ১৫১ বার  কারারুদ্ধ হয়েছে।  পরের স্থানে আরেক  নাবালক ৬২ বার ও তারপরের  স্থানের নাবালকটা  ৫১ বার জেল থেকে ঘুরে এসেছে।  তবে শুধু মাত্র হাতে গোনা কয়েকজন নাবাল  নয়, এমন বহু চিত্র দেখা যায় ব্রিটেনে। এখানে উঠছে এবার প্রশ্ন।  সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে সরকারের বক্তব্য অনুযায়ী দেশের নাবালকদের এমনকি চাহিদা রয়েছে যার জন্য তারা এতবার অপরাধ করে চলেছে। 

ঘটনা প্রসঙ্গে শিশু অধিকার বিষয়ক সংস্থা ‘আই ক্যান বি’র কর্মী আনস্তাসিয়া দে-ওয়াল বলেন,’ এইসকল নাবালকদের দেখে বোঝা যাচ্ছে যে শুধু মাত্র কারাগারে বন্দি করলে এরা শায়েস্তা হবে না। এদের জন্য পর্যাপ্ত সংশোধনাগার প্রয়োজন। কিন্তু বর্তমানে দেশে যে সকল কারাগার রয়েছে সেটের ব্যবস্থা ভাল না থাকায় শিশুদের সেখানে বেশিদিন বন্দি করে রাখা যাচ্ছে না’। 

অন্যদিকে আবার একই প্রসঙ্গে  হিউম্যান রাইটস ওয়াচের বক্তব্য অনুযায়ী, ব্রিটেনে কেন এত নাবালক অপরাধমূলক কাজের সঙ্গে জড়িত হচ্ছে তা খতিয়ে দেখা দরকার সরকারের।  মূল কারণ জানতে পারলেই নাবালকদের সোজা পথে আনা সম্ভব।  আবার ব্রিটেনের ক্রাইম প্রিভেনশন বিভাগের কর্মকর্তার কথায় ব্রিটেনে শিশু অপরাধের জন্য সেখানে পর্যাপ্ত পরিমাণে পুলিশ ও আদালত রয়েছে তাদের কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে শিশুদের সুরক্ষার দিকে নজর রেখে। তাহলেই একমাত্র দেশ থেকে চাইল্ড ক্রাইম  দূর করা সম্ভব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.