জন্ডিস আক্রান্ত হলে মুলা রক্তের বিলিরুবিনের হ্রাস করে। মূলার অসাধারন ১০ উপকারিতা

ওয়েব ডেস্কঃ মুলা ভিটামিন সি সমৃদ্ধ শীতকালীন সবজি যা দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।এর মধ্যে প্রচুর পুষ্টিগুণ বিদ্যমান যা স্বাস্থ্যর পক্ষে খুবই উপকারী।

মুলার ক্যারোটিনয়েডস চোখের দৃষ্টিশক্তি ঠিক রাখে এবং ওরাল, পাকস্থলী, বৃহদন্ত, কিডনি, কোলন ক্যান্সার প্রতিরোধে কাজ করে।

মুলার ফাইটস্টেরলস হৃদপিণ্ড সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

জন্ডিস আক্রান্ত হলে মুলা রক্তের বিলিরুবিনের কমিয়ে তাকে একটি গ্রহণযোগ্য মাত্রায় নিয়ে আসে।যা কিনা জন্ডিসের চিকিৎসার জন্য অত্যন্ত কার্যকারী।

মুলা মানুষের ক্ষুধাকে নিবৃত্ত করে এবং নকম ক্যালোরিযুক্ত সবজি হওয়ায় দেহের ওজন কমাতে সাহায্য করে।

অর্শের প্রধান কারন হচ্ছে কোষ্ঠকাঠিন্য।প্রচুর আঁশ সমৃদ্ধ সবজি মুলা খাদ্য পরিপাকক্রিয়াশীলকে গতিশীল করে হজমে সহায়তা করে যা অর্শ রোগের আশঙ্কাকে নির্মূল করে দেয়।

রক্ত পরিষ্কারক হিসাবে কাজ করে। সেই সাথে লিভার এবং পাকস্থলীর সমস্ত দূষণ এবং বর্জ্য পরিষ্কার করে থাকে।

মুলা কিডনি রোগসহ মুত্রনালির অন্যান্য রোগে উপকারি।

মুলার রসের সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেলে কফ, মাথাব্যাথা, অ্যাজমা নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

পোকামাকড়ের কামড় থেকে সৃষ্ট ক্ষত নিরাময়ে মুলা রস কার্যকারী।

জ্বর এবং এর কারনে শরীর ফুলে যাওয়া কমাতে সাহায্য করে অত্যন্ত উপকারি সবজি মুলা।

ত্বক পরিচর্যায়ও মুলা ব্যবহার হয়, কারন এটি অ্যান্টিসেপ্টিক হিসাবে কাজ করে।কাঁচা মুলার পাতলা টুকরো ত্বকে লাগিয়ে রাখলে ব্রণ নিরাময় হয়।এছাড়া কাঁচা মুলা ফেস প্যাক এবং ক্লিন্সার হিসাবেও দারুন উপকারী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.