মহাকাশযানে থাকলে দিনে কত বার সূর্যোদয় দেখতে পাবেন?

নিউজ ডেস্ক –    সানশাইন অর্থাৎ সূর্যোদয় দেখার জন্য পাহাড়ের সুদূর সীমানা পর্যন্ত পৌঁছাতে রাজি এমন বহু মানুষের উদাহরণ খুঁজে পাওয়া যায়। কারণ প্রকৃতির সৌন্দর্যের প্রেমে পড়ে না এমন কোনো মানুষ অবশিষ্ট নেই।  কিন্তু সহস্রবার সূর্যোদয় দেখেও যেন মন ভরতে চায় না মানুষের।   প্রকৃতিপ্রেমীদের জন্য সূর্যের একদম নিকটে গিয়ে জঙ্গলের ফটো তুলে দেশবাসীকে সূর্যোদয় আসল মানে বুঝিয়েছেন মহাকাশচারী তথা বিজ্ঞানী বব বেহনকেন। 

নাসার নভোশ্চর বব বেহনকেন মহাকাশযানে মহাকাশে অভিযান করেচলেন বেশ কিছু মাস আগে। আর সেখানেই পৃথিবী থেকে মাত্র ৪০০ কিলোমিটার দূর থেকেই সূর্যোদয়ের ৪ অ্যাঙ্গেলে ফটো তোলেন তিনি।  সেখানে রীতিমতো স্পষ্ট যে একটু একটু একটু করে কিভাবে গোটা বিশ্ব ব্রহ্মাণ্ডে রোগের ছড়িয়ে পড়ে রোদের ছটা।  তবে নভশ্চর বব  একা নন তার সঙ্গে মহাকাশে পাড়ি দিয়েছিলেন তার সঙ্গী ডওগ হারলে। যথারীতি তারা  চলতি বছরের  মে মাসে স্পেসএক্স-এর প্রথম ক্রু বিমানে আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশন ভ্রমণে গিয়েছিলেন। সকল দিক ঠিক থাকলে দু’মাস কক্ষপথে থেকে আগস্ট মাসে ফিরে আসার কথা রয়েছে বিজ্ঞানীদের।  

অন্যদিকে আবার মহাকাশ অভিযানের প্রসঙ্গে আটলান্টিক ম্যাগাজিন একটি প্রতিবেদন বের করে জানিয়েছেন , ইন্টার্নেশনাল স্পেস স্টেশনটি প্রতি ৯০ মিনিটে পৃথিবীকে একবার প্রদক্ষিণ করে। যার কারণে নভশ্চর মহাকাশযানের থেকেই দিনে গড়ে ১৬ বার সূর্যোদয় দেখতে পারেন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.