রাবণের ১০ টি মাথা আসলে কিসের প্রতিক জানা আছে?

নিউজ ডেস্কঃ রাবনে দশ মাথা কথা তো আমরা সবাই জানি আর এই কারনে তাঁকে দশানন বলা হয়।কিন্তু আপনারা কি জানেন যে রাবনে এই দশ মাথাটি ছিল তাঁর চারিত্রিক বৈশিষ্ঠ্যের প্রতীক। পুরাণ অনুযায়ী বলা হয় যে রাবনের ১০টি মাথা আসলে মানুষের ১০টি খারাপ চারিত্রিক বৈশিষ্ঠ্যের প্রতীক।শুনে অবাক হলেন তো হওয়াটায় স্বাভাবিক।

প্রথম মাথা – কাম

রাবন কামের বশবর্তী হয়ে সীতা হরণ করেছিলেন ।

দ্বিতীয় মাথা – মদমত্ততা

রাবন তাঁর নিজের জ্ঞানের ওপর অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসী ছিলেন। ইংরাজি ভাষায় যাকে বলা হয়  ‘ওভার কনফিডেন্স’।

তৃতীয় মাথা – অহংকার

রাবন ছিলেন খুব অহংকারী। তিনি নিজেকে সর্বসেরা ভাবতেন। আর এই জন্যই তিনি তাঁর ভাই বিভীষণ, কুম্ভকর্ণ এমনকি তাঁর পুত্র ইন্দ্রজিতের কোন কথা কান না দিয়ে রামের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে গিয়েছিলেন।

চতুর্থ মাথা – লোভ

রাবনের লোভের কোনও সীমা ছিল না। এই জন্য তিনি সীতাকে হরণ করে নিয়ে এসে তাঁকে অশোক বনে বন্দী  বানিয়ে রেখেছিলেন।

পঞ্চম মাথা – ক্রোধ

রাবনের ক্রোধের কথা তো বিশদে কিছুই বলার নেই। কারন তাঁর পরিচয় আমরা বহুবার পেয়েছিল যখন শূর্পনাখার কথায় কোনরকম সত্য-মিথ্যা বিচার না করে  ক্রোধের বশবর্তী হয়ে  প্রতিশোধস্পৃহায় পাগল হয়ে গিয়েছিলেন।

ষষ্ঠ মাথা – মোহ

রাবনের জাগতিক সমস্ত কিছুর প্রতিই মাত্রাতিরিক্ত টান ছিল। তাই তাঁর মোহ বজায় রাখতে তাঁকে যতই নীচে নামতে হোক না কেন, রাবন তাতেও রাজি। আর এরই তার প্রমাণ পাওয়া যায় যখন তিনি  বালির সঙ্গে যুদ্ধ করেন।

সপ্তম মাথা – মাৎসর্য

রাবনের মধ্যে সহজেই হিংসা জন্মাত। এইজন্য তিনি পরের জিনিস হস্তগত করতেন। এর প্রমান পাওয়া যায় যখন রাবন ভাই কুবেরকে লঙ্কার সিংহাসন থেকে সরিয়ে নিজে রাজা হয়ে হয়ে ছিলেন।

অষ্টম মাথা – জড়তা

রাবন কাছে অন্যের আবেগ ভালোবাসার কোন গুরুত্ব ছিল না।

নবম মাথা – ঘৃণা

রাবনের মধ্যে এই গুনটি এত পরিমানে ছিল  যে তাঁর কবল থেকে নিজে ভাই বিভীষণও ছাড় পাননি।

দশম মাথা – ভয়

রাবন নিজের সম্পত্তি এবং অবস্থা হারানোর ভয়ে ভুল পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয়েছিলেন।

রাবন অসীম জ্ঞানী হওয়া স্বত্বেও তাঁর  এই ১০ মাথাটি ছিল  জাগতিক সমস্ত চাহিদার প্রতি কামনা বাসনায় ভরা। যার কারনে রামের হাতে  তাঁর পতন হয়েছিল।  

Leave a Reply

Your email address will not be published.