৫০০০ বছরের পুরনো প্রাচীন মন্দিরের খোঁজ মাটি খুঁড়ে

নিউজ ডেস্ক – গোটা পৃথিবীর আনাচে-কানাচে লুকিয়ে রয়েছে ইতিহাস। যা সারাজীবন খুঁজলেও এর হদিস মেলা বড়ই কষ্ট দায়ক ব্যাপার। তবুও কচ্ছপের গতিতেই কার্য চালিয়ে যাচ্ছেন সকল  বিশেষজ্ঞরা।  সেই ঐতিহাসিক নিদর্শনের খোঁজে এবার বিশেষজ্ঞদের হাতে লাগলো  ৫ হাজার বছরের পুরনো এক নগরী। 

বিশেষজ্ঞরা খোঁজ করে জানিয়েছেন এই নগরটি সম্ভবত ব্রোঞ্জের যুগে  নির্মাণ হয়েছিল। যার কারণে এখানে উন্নত নগরের সন্ধান পান তারা। এছাড়াও যে স্থানটিতে এই নগরের চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে সেই স্থানটি প্রায় ০.৬৫ বর্গ কিলোমিটার। তাই এই সকল চিহ্ন দেখেই অনুমান করা যায় যে এখানে প্রায় কয়েক হাজার লোকের বাস ছিল। ‌

স্ববিস্তারিত  বলতে গেলে বিশেষজ্ঞরা সেই নগর থেকে সুপ্রাচীন এই শহরে একটি মন্দিরের সন্ধান পেয়েছেন। সেই মন্দিরের ভেতর থেকে একটু মানুষ এবং একটি পশুর মুখের চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে। পাশাপাশি একটি পাথরের বেসিনের মধ্যে থেকে প্রাণীদেহের পোড়া হাড়ও পাওয়া গিয়েছে।এই ধ্বংসাবশেষ থেকে বিভিন্ন মৃৎশিল্পের নিদর্শন, পাথর ও বেসল্টের তৈরি ফুলদানিও পাওয়া গিয়েছে। এরপাশাপাশি সেখান থেকে প্রায় ২০ মিটার দীর্ঘ এবং দুই মিটার উঁচু একটি কবরস্থান রয়েছে। এসকল খচিত  নিদর্শন দেখে মনে করছেন প্রাচীন যুগে উন্নত নগরের প্রথম পদক্ষেপ। একাধিক সুত্র মতে এটি ইসরায়েলের পার্শ্ববর্তী কোনও স্থানে পাওয়া গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.