বাড়ি হোক অথবা অফিস মেজাজের উপর অনেক কিছু নির্ভর করে

নিউজ ডেস্কঃ মানুষ হাসতে ভুলে গেছে।আর সেই কারনে আজকাল লাফিয়ে বাড়ছে লাফিং ক্লাসের সংখ্যা। শুধু লাফিং ক্লাস নয় পাশাপাশি একাধিক কমেডি শো এর জনপ্রিয়তা বাড়ছে। তবে সবথেকে বড় কারন হল। এই হাসির মূল্য যে কতটা আজ হয়ত মানুষ বুঝতে পারছে। আর সেই কারনে মানুষে হাসার চেষ্টা করছে। মোবাইল সোশ্যাল মিডিয়া বা বিনোদনের যুগে হাসির বা মানুষের মনোরঞ্জনের ভীষণ অভাব।জীবনে সবথেকে ভালো থাকার উপায় হল মন খোলা হাসি৷ শুধু ভাল সময়েই হাসলে চলবেনা পাশাপাশি খারাপ সময়েও  হাসি চাই৷ বিনোদনের মাধ্যমে না হলেও লাফটার যোগা বা হাস্যাসনের মাধ্যমে হতেই পারে৷ এই ধরনের যোগার অনেক উপকার৷ মানসিক অবসাদ দূর করার পাশাপাশি একাধিক উপকার কর আমাদে শরীরের। দিনে ১৫ থেকে ২০ মিনিট এই আসন অভ্যেস করলে প্রচুর উপকার পাওয়া যাবে।

বাড়ি হোক অথবা অফিস মেজাজের উপর অনেক কিছু নির্ভর করে৷ মেজাজ ভাল থাকলে কাজ ভালোভাবে হয় আর খারাপ থাকলে কাজের পারফরম্যান্স ও খারাপ হয়৷ তবে এই হাস্যাসন আপনার মেজাজকে অনেক তাড়াতাড়ি ভাল করে দিতে পারে৷ হাসির ফলে মস্তিষ্কে এন্ডরফিন নামক এক কেমিক্যালের বের হয় যা মানব শরীরকে উদ্দীপিত করে এবং মন ভালো করতে সাহায্য করে।

হাসি মানসিক অবসাদ দূর করতে সাহায্য করে৷ বর্তমান প্রজন্মের অতিরিক্ত কাজের চাপ, চাহিদা ফলে তারা মানুষিক ভাবে অবসাদ গ্রস্থ হয়ে পড়েন৷ এই আসন এমনই এক জিনিস যার সাহায্যে এই সমস্যাকে এক সমস্যাকে দূর করা যেতে পারে৷

যারা বিক্রয় বা সেলস ডিপার্টমেন্টের সাথে জড়িত তাদের জন্য হাস্যাসন খুব দরকার৷ কারন এটি মুখে হাসি আনার পাশাপাশি শারীরিক অসুস্থতাকেও দূর করতে সাহায্য করে।

হাসি একটি ধনাত্বক বা পসিটিভ শক্তিযার কারনে অনেক তাড়াতাড়ি মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করা সম্ভব হয়৷ আপনি যত বেশি হাসতে পারবেন আপনার বন্ধুবান্ধবের সংখ্যা ততই বেশী হবে।

এই বিশ্ব ব্রহ্মাণ্ডে শিশুরাই হল সবথেকে বেশি সৃষ্টশীল, তার প্রধান কারণ হল তারা মন প্রান খুলে হাসতে পারে৷ আর এই হাসির কারনে মানসিক চেতনা দৃঢ় হওয়ার পাশাপাশি উদ্ভাবন ক্ষমতা বেড়ে যায়৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.