চুলের ধরন অনুযায়ী এসেন্সিয়াল ওয়েল বেছে নিন

নিউজ ডেস্কঃ মানুষের সৌন্দর্য অনেকাংশ নির্ভর করে চুলের উপর।বিশেষ করে নারীদের কাছে তাদের চুল খুবই মূল্যবান।তাই তারা চুলের বিষয়ে খুবই সচেতন থাকে।তাই চুলের যত্নের জন্য বিভিন্ন ধরনের কাজ করে থাকে যেমন- হেয়ার প্যাক থেকে শুরু করে আরও কত কি না করে। কিন্তু অনেক সময় দেখা যায় যে তাতে খুবই ভালো ফল পাওয়া যায় না।এতে মন খারাপ হওয়াটায় স্বাভাবিক।কিন্তু এখন আর নয় মন খারাপ দূর করে ভালো ফল পাওয়ার জন্য কিছু নিয়ম মেনে চুলের যত্ন নিন।এতে আপনারা খুবই ভালো ফল পাবেন। তাহলে জেনে নিন এইসব নিয়মগুলি-

চুলের ধরন অনুযায়ী এসেন্সিয়াল ওয়েল বেছে নিন- নিজেদের চুলের ধরন অনুযায়ী এসেন্সিয়াল অয়েল নিন।যেমন- যাদের খুসকির সমস্যা আছে তারা ল্যাভেন্ডার ওয়েল।যাদের চুল পড়ার সমস্যা আছে তারা পিপারমিন্ট ওয়েল ব্যবহার করুন।এছাড়াও যাদের চুল রুক্ষ তারা ক্যামমিল ওয়েল ব্যবহার করতে পারেন।

স্ক্যাল্প মাসাজের ওয়েল- স্ক্যাল্প মাসাজের জন্য ১ টি পাত্রে সামান্য এসেন্সিয়াল ওয়েল নিয়ে তাতে কেরিয়াল ওয়েল যেমন- আলমণ্ড ওয়েল বা  অলিভ ওয়েল বা নারকেল তেল মিশিয়ে নিন।তারপর ওই মিশ্রন নিয়ে ভালো করে স্ক্যাল্পে মাসাজ করুন।

চুল ভালো করে আঁচড়ান- চুল চিরুনি দিয়ে ভালো করে আঁচড়াবেন।তবে সবচেয়ে ভালো হয় যদি চিরুনির পরিবর্তে হেয়ার ব্রাশ দিয়ে চুল আঁচড়ান।

স্ক্যাল্পে ভালো করে মাসাজ করুন- আপনাদের আঙুলের সাহায্যে হালকা হাতে তেল দিয়ে স্ক্যাল্পে মাসাজ করুন।

চুলে গরম ভাপ নিন-মাসাজ করার পর হালকা গরম একটি তোয়ালে দিয়ে মাথা এবং চুল ১০ মিনিটের জন্য ঢেকে রাখুন।

চুল ভালো করে ধোবেন- ১০ মিনিট পর শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।তবে যাদের চুল শুষ্ক তারা সারা রাত রেখে পরের দিন ধুয়ে ফেলতে পারেন।এতে উপকার পাবেন।

অন্তত সপ্তাহে একবার চুলের মাসাজ করবেন- চুল সুন্দর পেতে হলে নিয়মিত অন্তত একবার মাসাজ করা প্রয়োজন।এতে চুলের অনেক সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.