কোন দেশে লাল রং কে শোকের প্রতীক বলে?

নিউজ ডেস্ক- এই দেশে বিবাহের পর একটি মেয়ে তার সন্তানের নামের পদবী নিজের পদবী অনুযায়ী রাখতে পারে। তিউনিশিয়া যার সরকারি নাম তিউনিসিয়া প্রজাতন্ত্র এটি আফ্রিকার একটি রাষ্ট্র। আফ্রিকা মহাদেশের উত্তর উপকূলে ভূমধ্যসাগরের তীরে অবস্থিত তিউনিশিয়া  দেশটির রাজধানী ও সবথেকে বড় শহর হল তিউনিস। এখানকার সরকারি ভাষা হল আরবি। দেশটির মোট আয়তন ১,৬৩,৬১০ বর্গ কিলোমিটার। 

তিউনিসিয়ার  সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য গুলি হল

1. সাহারা মরুভূমির পাশে স্থিত এই দেশ অনেক ছোট হওয়া সত্ত্বেও এখানে নানা বৈচিত্র্যময় জিনিস রয়েছে। তিউনিসিয়া আফ্রিকার সেই সকল দেশ গুলির মধ্যে পড়ে যাদের জীবন যাপনের পদ্ধতি অনেকটা ইউরোপিয়ান দেশ গুলির মত। 

2. তিউনিশিয়ায় লাল রং কে শোকের প্রতীক বলে। এখানে কোন অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় এই রঙের জামা কাপড় পরিধান করা হয়। তিউনিশিয়ায় লাল হল শোকের রং।

3. তিউনেশিয়ার দক্ষিণাংশ একসময় বালি ও বনাঞ্চলে আবৃত ছিল। কিন্তু পরবর্তীতে প্রায় 8 হাজার বছর আগে সাহারা মরুভূমি অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়ে। 

4. একসময় হলিউডে তৈরি হওয়া মহান চলচ্চিত্র স্টার ওয়ার ও জিজাস অফ নাজারেথ এই দেশটিতে শুট করা হয়েছিল। 

5. তিউনিসিয়ার বেশিরভাগ মানুষ উটের মাংস খেতে খুবই পছন্দ করে। তিউনিসিয়া থাকা বেশিরভাগ মানুষ একসময় যাযাবর প্রকৃতির ছিল। 

6. এই দেশে বিবাহের পর একটি মেয়ে তার সন্তানের নামের পদবী নিজের পদবী অনুযায়ী রাখতে পারে। এই ব্যবস্থাটির দুনিয়ার অনেক কম দেশে লাগু করা হয়েছে। 

7. তিউনিসিয়ার মদিনা শহর একটি ঐতিহাসিক শহর। এখানে 700 বেশি ঐতিহাসিক স্মৃতিসৌধ রয়েছে। এখানেই মহল , মসজিদ, চার্চ, মিউজিয়াম ও ঐতিহাসিক ঘরবাড়ি রয়েছে।

8. তিউনিশিয়া একমাত্র আরব দেশ যেখানে মহিলাদের প্রতি ঘরালু হিংসা, নির্যাতন এর বিরুদ্ধে আইন তৈরি করা হয়েছে। 

9. তিউনিসিয়ার রাজধানী তিউনিস আফ্রিকার সবথেকে সুন্দর শহর গুলির মধ্যে একটি। এছাড়াও এই দেশটি আফ্রিকার অন্যান্য দেশ থেকে অনেক উন্নত। এই দেশ থেকে উৎপাদিত দ্রব্য ইউরোপের অন্যান্য দেশে রপ্তানি করা হয়। 

10. প্রাচীনকালে এই দেশ রোমান সাম্রাজ্যের অংশ ছিল তখন এখানে বেশিরভাগ মানুষ খ্রিস্টান ধর্ম পালন করত। কিন্তু পরবর্তীতে এই দেশটি একটি মুসলিম রাষ্ট্রে পরিণত হয়। বর্তমানে দেশটির 99% মানুষ মুসলিম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.