ভ্রমণ পিপাসুরা সময় পেলেই কেন লাদাখ বেড়াতে যেতে চান!

নিউজ ডেস্ক  – লাদাখ হচ্ছে ভ্রমণপিপাসুদের কাছে একটি ভূ-স্বর্গ।  কারণ এখানে নীল আকাশের নিচে পাহাড়ের সমাগম লক্ষ্য করা যায়। যেখানে প্যাংগং লেক এর উপত্যকায় শীতল স্নিগ্ধ বাতাস সুন্দর দৃশ্য প্রত্যক্ষ করা যায়।  কার্যত এই সকল মনোরম দৃশ্য উপভোগ করতে লাদাখে অনেকে বাইক নিয়ে রাইডে বেরিয়ে পড়েন। তবে শুধুমাত্র সকালেই নয় একে আরও আকর্ষণীয় করে দেয় রাতের আকাশ।  

সেই কারণেই সম্প্রতি ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ অ্যাস্ট্রোফিজিক্সের সহযোগিতায় লাদাখের প্রশাসন কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের হানলে গ্রামে অ্যাস্ট্রো ট্যুরিজমের সূচনা করতে চলেছেন।  যার কারণে বর্তমানে হানলেকে এখন অন্ধকার আকাশের অভয়ারণ্য হিসেবে জানে সকলে। লাদাখে রয়েছে বিশ্বের সর্বোচ্চ জ্যোতির্বিজ্ঞান মানমন্দির।   

হানলে গ্রাম সম্পর্কে আরও বিস্তারিত বলা যায় যে   প্রাচীন লাদাখ তিব্বত বাণিজ্য রুটের একটি পুরনো শাখায় হানলে  নদীর  উপত্যকায় অবস্থিত এই গ্রামটি।  এই গ্রামটির এমন জায়গায় অবস্থিত যেখানে রাব্বির আকাশ থেকে তারাদেশ সমারোহ দেখার পাশাপাশি অভয়ারণ্যের স্বাদও গ্রহণ করা যায়।  মন্ত্রী কে অন্ধকার আকাশে অভয়ারণ্য হিসেবে গড়ে তুলতে ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ এস্ট্রোফিজিক্সের সঙ্গে সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।  কার্যত এই ডার্ক স্কাই স্যাংচুয়ারি ভারত তথা লাদাখের পর্যটন শিল্পে  আরও কয়েক গুণ সৌন্দর্য বৃদ্ধি করবে বলে অনুমান করা যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.